অধিক মূল্যে বিক্রয়ের প্রলোভনে গরু আত্মসাৎ করতেন তিনি

পিবিএ,ঢাকা: অধিক মূল্যে গরু বিক্রয়ের প্রলভোন দেখিয়ে গরু আত্মসাৎকারী অভিযুক্ত মোঃ কামরুল মোল্যা(৪০)-কে  পিবিআই যশোর জেলা ইউনিট ইনচার্জ পুলিশ সুপার রেশমা শারমিন, পিপিএম-সেবা এর নেতৃত্বে এসআই (নিঃ)/ সঞ্জয় বিশ্বাস সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ যশোর জেলার চৌকস দল কর্তৃক পুলিশি অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে গত ৫ নভেম্বর অভিযুক্ত মোঃ কামরুল মোল্যা(৪০)-কে ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ থানার পিরোজপুর গ্রামের জনৈক নুর আলীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকালে অভিযুক্তের স্বীকারোক্তি মোতাবেক নুর আলীর বাড়ীর গোয়ালঘর থেকে মিন্টু সরদার এর কাছ থেকে প্রতারণা পূর্বক বিক্রয়ের নাম করে নেয়া গরুটি উদ্ধার করা হয়।

মোঃ কামরুল মোল্লা গত ১ আগস্ট হতে ২২ আগস্ট পর্যন্ত মোঃ হাদিউজ্জামান ওরফে চিমি যশোর জেলার কেশবপুর থানার চিংড়া গ্রামের বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছিল। কামরুল মোল্লা উক্ত বাড়ীতে ভাড়া থাকা অবস্থায় হাদিউজ্জামান এর প্রতিবেশি মোঃ মিজানুর রহমান তার একটি এড়ে গরু বিক্রয় করতে চাইলে অভিযুক্ত মোঃ কামরুল মোল্যা উক্ত গরুটি বিক্রয় করতে সহায়তা করে এবং ১,০০,০০০/-(এক লক্ষ) টাকায় বিক্রয় করে দেয়। অতঃপর অভিযুক্ত ধার হিসেবে মিজানুর রহমান এর নিকট থেকে ৪০,০০০/-(চল্লিশ হাজার) টাকা নেয়। এরপর আসামী একইভাবে প্রতিবেশি মিন্টু সরদার এর একটি এড়ে গরু যার রং কালো মাথায় ও গলায় রং সাদা, মুল্য আনুমানিক ১,২০,০০০/-(এক লক্ষ বিশ হাজার) টাকা ও মিলন এর আরও একটি এড়ে গরু যার রং কালো আনুমানিক মূল্য ১,৩০,০০০/-(এক লক্ষ ত্রিশ হাজার) টাকা বিক্রয় করার কথা বলে নেয়।

এছাড়াও প্রতিবেশি আসাদুল পিং-আলতাফ এর নিকট হতে নগদ ৮৫,০০০/-(পঁচাশি হাজার) টাকা ধার গ্রহণ করে এবং ১টি Narzo ৩০ মোবাইল ফোন বিক্রয় করে দেওয়ার কথা বলে নেয়। এরপর কামরুল মোল্লা এবং তার স্ত্রী মোছাঃ আছমা খাতুন গত ইং ২২ আগস্ট দিবাগত রাত ৯টার দিকে কাউকেও কিছু না জানিয়ে সকলের অগোচরে হাদিউজ্জামান এর বাড়ীভাড়া বাবদ ৬,০০০/- (ছয় হাজার) টাকা ও বিদ্যুৎ বিল বাবদ ১,০০০/-(এক হাজার) টাকাসহ সর্বমোট ৩,৯২,০০০/-(তিন লক্ষ বিরানব্বই হাজার) টাকা ফেরৎ না দিয়ে আত্মসাৎ করে অজ্ঞাত স্থানে পালিয়ে যায়।

উক্ত ঘটনা সংক্রান্তে মোঃ হাদিউজ্জামান বাদী হয়ে অভিযুক্ত মোঃ কামরুল মোল্লা এবং তার স্ত্রী মোছাঃ আছমা খাতুন এর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলে কেশবপুর থানার মামলা নং-০৭, তারিখ-০৫/১১/২০২২ খ্রিঃ, ধারা-৪০৬/৪২০ পেনাল কোড রুজু হয়।

পিবিআই যশোর মামলাটি স্ব-উদ্যোগে গ্রহণ করে মামলার তদন্তভার এসআই (নিঃ) সঞ্জয় বিশ্বাস মামলার তদন্তভার গ্রহণ করে পুলিশ সুপার রেশমা শারমিন, পিপিএম-সেবা এর সঠিক দিক নির্দেশনায় এসআই (নিঃ)/ সঞ্জয় বিশ্বাস সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ যশোর জেলার চৌকস দল কর্তৃক পুলিশি অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে গত ০৫/১১/২০২২ তারিখ রাত  সাড়ে ১০টার সময় অভিযুক্ত মোঃ কামরুল মোল্যা(৪০)-কে ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ থানার পিরোজপুর গ্রামের জনৈক নুর আলী এর বাড়ী থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকালে অভিযুক্তের স্বীকারোক্তি মোতাবেক নুর আলীর বাড়ীর গোয়ালঘর থেকে মিন্টু সরদার এর কাছ থেকে প্রতারণা পূর্বক বিক্রয়ের নাম করে নেয়া গরুটি উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত অভিযুক্ত কামরুল মোল্লা বিভিন্ন জায়গায় বাসাভাড়া নিয়ে থাকে এবং প্রথমে টাকা দিয়ে গরু কিনে সাধারণ লোকজনের আস্থা অর্জন করে। তারপর প্রতারণা পূর্বক এলাকার লোকজনদের নিকট থেকে টাকা ধারসহ গরু ছাগল ও মূল্যবান জিনিসপত্র কৌশলে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে গিয়ে গা ঢাকা দেয়। অভিযুক্ত কামরুল মোল্লা এর স্থায়ী ঠিকানা থাকলেও গত ২০ বছর যাবৎ সে স্থায়ী ঠিকানায় আসা যাওয়া করে না। অভিযুক্ত কামরুল মোল্লা বিভিন্ন স্থানে ভাসমান অবস্থায় এবং ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে। অভিযুক্ত প্রতারনা পূর্বক মিন্টু মিয়া ও মিলন এর নিকট থেকে গরু এবং মিজানুর ও আসাদের নিকট থেকে নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন নেওয়ার বিষয়ে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করে। অভিযুক্ত কামরুল মোল্লা (৪০)-কে গতকাল (৬ নভেম্বর) জনাব মোঃ ইমরান আহম্মেদ, বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ২য় আদলত, যশোর আদালতে সোপর্দ করা হলে অভিযুক্ত ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে। মামলা তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।

আরও পড়ুন...