অসাধু সুদখোর সমাজ ধ্বংসের হাতিয়ার: ওসি আব্দুল হাই

পিবিএ,নওগাঁ: নওগাঁয় চলছে জমজমাট সুদের মহাজনি ব্যাবসা তাতে জিম্মি সাধারণ খেটেখাওয়া মানুষ। প্রতিটি গ্রমে পাড়া মহল্লার মোড়ে মোড়ে সমাজ সেবা, মাল্টিপারপাস্, ঋণদান সংস্থা নাম ধারী প্রতিষ্ঠানের অন্তরালে ও চলছে রমরমা চড়া সুদের অমানবিক দাদন ব্যাবসা। ব্যাক্তি পর্যায়ের কিছু সুদখোড় রয়েছেন সপ্তাহিক প্রতি হাজারে ১শত টাকা সুদে অর্থাত প্রতি হাজারে ৪ সপ্তাহে ৪ শত টাকার চুক্তিতে ঋণ বিতরণ করছেন। এই সমস্ত সুদ খোরদের বিভিন্ন পয়েন্টে গ্রাহক যোগানের জন্য দালাল রয়েছে বলে অনুসন্ধানে জানা গেছে।

এই সমস্ত কারবার গুল লোক সমাজের অন্তড়ালে হয়। লোক সমাজের নজরে আসে ঠিক তখনি যখন দাদন দাতা দের সাথে গ্রাহকদের দন্দ তৈরিহয়। অহরহ ঘটছে এমন ঘটনা,মাত্র ৫ হাজার টাকা ঋণ গ্রহন করে ১৮ হাজার টাকা সুদ দেবার পরেও এখন ১২ হাজার টাকার দাবীতে রাস্তার মোড়ে স্থানিয় পাতি মাস্তানদের সহযোগিতায় গরিব খেটে খাওয়া মানুষদের রিক্সা ভ্যান জব্দ করছেন অসাদু সুদখোড় দের সেন্টিকেট। সম্প্রতি সময়ে অমানবিক দাদন ব্যাবসা বন্ধের দাবিতে নওগাঁ সদর ও মহাদেবপুর উপজেলায় মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অমানবিক দাদন ব্যাবসার বিষয়ে নওগাঁ সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, মাদকের মতয় ভয়াবহ রুপ নিয়েছে সমাজে দাদন ব্যাবস্থা অমানবিক অসাধু দাদন ব্যাবসায়ীদের দৌড়াত্ত বেড়েই চলেছে। নিম্ন ও মধ্যবিত্ব আয়ের খেটেখাওয়া মানুষদের অভাব অনটনের সুযোগে তাদের কাছ থেকে ঋন দেবার সময় ব্লাইং (ফাঁকা) চেক নিচ্ছে।ঋন গ্রস্থরা সময়মত টাকা দিতে না পারায় তাদেরকে এন আই এ্যাক্ট মামলায় ফাঁসিয়ে দিচ্ছে ইচ্ছেমত অংক বশিয়ে। ৪০% ওয়ারেন্ট ইসু হচ্ছে চেকের (এন আই এ্যাক্ট) মামলার।

শহর,গ্রাম,পাড়া,মহলার অলি গলিতে ব্যাক্তি পর্যায়ে নমগড়া নিয়ম নীতিতে প্রতি হাজারে এক থেকে চার শত টাকা সুদে ঋন দান করছেন। দাদন দাতা ও গ্রাহকের দন্দ দেখলে আমরা দুরে সরেজাই এটাবলে যে লেনদেনের ব্যাপারে না জরানোই ভালো। আর এসুযোগে সুদখোড়দের সেন্টিকেট আরো বেপড়োয়া ও সক্রিয় হয়ে উঠছে। তাদের ভয়ভিতিতে মানষিক ভাড়সাম্য হারিয়ে আত্মহত্যারার মত পথ বেছেনিচ্ছেন অনেকে। এসব ঘটনার নজির রয়েছে শুধু নওগাঁতেই নয় পুর দেশজুরে। গ্রামের অনেক মানুষ হঠাৎ করেই রাতে আধারে সহ-পরিবার নিয়ে উধাও। পরে জানাযায় সুদখোড়দের চাপে পরে পালিয়েছে বাপ দাদার ভিটামাটি ছেরে। (ওসি) আরোবলেন, এদেশে যেমন আইন রয়েছে তার প্রয়োগও রয়েছে। অসাধু সুদখোড়দের বিরুদ্ধে তৎপর রয়েছে নওগাঁ জেলা পুলিশ প্রসাশনের উদ্ধতন কর্মকর্তা সহ নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার মহদয় প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল মান্নান মিয়া (বিপি এম) স্যার।প্রতি হাজারে ১ থেকে ৪ শত টাকা সুদে নেয়াদেয়া ব্যাক্তি দেরকে চিনহিত করে শংশ্লিষ্ঠ থানা পুলিশকে অবহিত করুন। অসাধু দাদন ব্যাবসায়ী দেরকে ফাঁকা চেক দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। এবিষয়ে সাপাহার উপজেলার সর্ব স্তরের জন সাধারণের সহযোগীতা চেয়েছেন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই নিউটন।

পিবিএ/ইউনুস আলী ফাইম/বিএইচ

আরও পড়ুন...