আখেরি মোনাজাতে শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমা

আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো তাবলিগ জামাত আয়োজিত ৫৬তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। আখেরি মোনাজাতের সময় ‘আমিন, আল্লাহুম্মা আমিন’ ধ্বনিতে তুরাগতীর মুখরিত হয়ে ওঠে তুরাগতীর। সন্তুষ্টি লাভের আশায় লাখো মানুষ আল্লাহর কাছে আর্জি জানান। অনেকে কেঁদে কেঁদে মহান আল্লাহর কাছে ক্ষমা চান। বিশ্ব শান্তির জন্য দোয়া করেন।

রোববার (২২ জানুয়ারি) দুপুর সোয়া ১২টার দিকে আখেরি মোনাজাত শুরু হয়ে ১২টা ৪৪ মিনিটে শেষ হয়। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন দিল্লির মাওলানা সাদ কান্ধলভীর বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ কান্ধলভী। এর আগে তিনি হেদায়েতি বয়ান করেন।

এ দিন সকাল থেকেই আখেরি মোনাজাতের কারণে ইজতেমা মাঠের আশপাশের সড়কের যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত ছিল। যারা ইজতেমার ময়দানে পৌঁছাতে পারেননি তারা পথে-ঘাটে, বাস, রিকশা, আশপাশের মসজিদ, দোকান-পাটে বসেও মোনাজাতে অংশ নিয়েছেন। ফেসবুক লাইভ, এফএম রেডিও, হ্যান্ড মাইক, মসজিদের বড় মাইক ও অনলাইনের মাধ্যমে ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে অংশ নিয়েছেন।

সম্মিলিত ‘আমিন’, ‘আমিন’ ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠেছে পুরো ইজতেমা ময়দান। সর্বস্তরের মানুষ অশ্রুসিক্ত নয়নে আল্লাহ তাআলার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। সেই প্রার্থনার তরঙ্গ এসে মিলেছে দূর-দূরান্তে হাত উঠানো মানুষের মাঝেও।

মোনাজাতে নিজেদের হৃদয়ের আবেগ-অনুভূতি আল্লাহর কাছে তুলে ধরেছেন। অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে ‘আমিন’, ‘আমিন’ ধ্বনি আর চোখের পানিতে বুক ভাসিয়েছেন তারা।

আব্দুল্লাহপুর ব্রিজের পাশে মসজিদের মাইক থেকে ভেসে আসছে ইজতেমার ময়দানের আখেরি মোনাজাতের ধ্বনি। ‘আমিন’, ‘আমিন’ বলে নিজেদের সপে দিচ্ছেন খণ্ড খণ্ড দলে বিভক্ত হয়ে সড়কে বসে পড়া মানুষেরা।

আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে উত্তরা, টঙ্গী, গাজীপুরসহ আশপাশের এলাকার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, কল-কারখানা, মার্কেট, বিপণি-বিতান, অফিসসহ সব কিছু বন্ধ ছিল।

দুই পর্বের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব (মাওলারা জুবায়ের অনুসারী) গত ১৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে চলে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। ১৫ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতে শেষ হয় প্রথম পর্বের ইজতেমা। এর চার দিন পর গত শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) দ্বিতীয় ও শেষ পর্বের ইজতেমা শুরু হয়। আজকের আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা শেষ হলো।

আরও পড়ুন...