আবেগ কিভাবে মানুষকে বোকা বানায়?

পিবিএ ডেস্কঃ আবেগপ্রবণ, অনুভূতিপ্রবণ মানুষ হলে খুব সহজেই তারা অন্যের কথায় বা ব্যবহারে আঘাত পেয়ে থাকেন। এমন মানুষেরা মনের দিক থেকে খুব বড় হন, তবে অন্যদের কাছে মাঝে মাঝে বিরক্তির কারণ হয়ে ওঠেন। সবার কাছ থেকে এরা সমান গুরুত্ব ও ভালোবাসা পান না। ফলে কষ্ট পেয়ে নিজেকে গুটিয়ে নেন। তবে এরা দয়ালু ও সাহসী হন। খুব সহজেই অন্যের মন জয় করতে পারেন তারা। আবেগপ্রবণ মানুষদের কিছু গুণ থাকে যা অন্যদের থাকে না। নিচের স্লাইডে দেখে নিন, আবেগপ্রবণ মানুষ হলে কোন কোন গুণ অবশ্যই থাকবে আপনার মধ্যে।

কিছুটা সময় একা থাকতে চানঃ আবেগপ্রবণ মানুষেরা নিজের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালোবাসেন। নানা জিনিস চিন্তা করেন, বিচার-বিশ্লেষণ করে দোষ-ত্রুটি খুঁজে বের করার চেষ্টা লেগে থাকেন। তাতে মানুষ হিসাবে আরও উন্নতির অবকাশ থাকে।

অন্যেরা আপনাকে দুর্বল ভাবেঃ যখন মানুষ খুব সহজেই আপনার মন ভাঙে, তাতেই বোঝা যায়, কতোটা আবেগপ্রবণ মানুষ আপনি। তবে তাতে এটা প্রমাণ হয় না যে আপনি দুর্বল। নিজের আবেগকে কোনওভাবে প্রকাশ না করতে পারার জন্যই এমন হয়।

সবাই নিজের অসুবিধার কথা বলেঃ অনুভূতিপ্রবণ মানুষদের সবাই এসে নিজের মনের কথা বলে হালকা হয়। সকলের মনে হয়, এমন মানুষকে মনের কথা বললে তিনি বুঝবেন। আপনিও সেই দলে পড়েন কিনা সেটা যাচাই করুন।

অন্যের দুঃখে কষ্ট হওয়াঃ অন্যকে কষ্ট পেতে দেখলে মন কেমন করে ওঠে? অন্যের দুঃখে সমব্যথী হতে ইচ্ছে করে? এসব গুণ কিন্তু আবেগপ্রবণ মানুষেরই থাকে।

কাউকে না বলতে না পারাঃ অনুভূতিপ্রবণ মানুষেরা কখনও কাউকে না বলতে পারেন না। কাউকে চট করে দুঃখ দিতে এমন মানুষেরা অপারগ। অন্যের অনুভূতিকে সম্মান জানানো অনুভূতিপ্রবণ মানুষদের এক অনন্য গুণ।

আবেগের বহিঃপ্রকাশ করাঃ অনুভূতিপ্রবণ মানুষেরা খুব তাড়াতাড়ি খুশি বা দুঃখী হয়ে যান। ফলে তাড়া নিজেদের আবেগের বহিঃপ্রকাশ করতে ভোলেন না।

তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্ত নেওয়াঃ আবেগের বশে অনেকে অনেক চরম সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন। যা নিয়ে পরে আফসোস হয়। এটা ভালো গুণ না হলেও আবেগপ্রবণ মানুষদের এই গুণটি থাকে।

পিবিএ/এমআর

আরও পড়ুন...

ঘরে বসেই নিজের বিকাশ একাউন্ট খুলুন