আস্করপুর ইউনিয়ন বিদায়ী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গাছ বিক্রির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

সালাহ উদ্দিন আহমেদ,পিবিএ, দিনাজপুর : দিনাজপুর সদরের আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে নিমাইখাড়ি পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির তত্বাবধানে থাকা প্রায় ২৬শত গাছ অবৈধভাবে বিক্রির টাকা আত্বসাতসহ নানান অভিযোগের বিচারের দাবিতে আজ সোমবার দুপুরে নিমাইখড়ির (পানি সরবরাহ নালা) পাশে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে সমিতির ক্ষতিগ্রস্থ সদস্যরা। গাছ বিক্রির হিস্যার টাকা বুঝিয়ে দেওয়াসহ তার বিচার দাবি করেছে তারা।

নিমাইখাড়ি পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলী জানান, নিমাইখাড়ি পাশে ৬ কিলোমিটার এলকার খাস জমিতে লাগানো প্রায় ২৯শত মেহগতি শিশু এবং ইউক্লিপ্টাস গাছের মধ্যে বছর তিনেক আগে ১০লাখ টাকা মূল্যের প্রায় আড়াই হাজার গাছ বিক্রি করে সব টাকা আত্মসাত করেছেন সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন। ওই গাছ বিক্রির টাকার মধ্যে ৩লাখ টাকার হিস্যা রয়েছে সমবায় সমিতির। ওই টাকা বন্টন হওয়ার কথা গাছ তদারকারি সদস্যেদের মাঝে। কিন্তু সমিতির অনুমোদন ছাড়াই এককভাবে গাছ বিক্রি করেন সমিতির সভাপতি তৎকালিন ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন। এছাড়াও সদস্যদের সঞ্চয়ের তিন লাখ এবং খাড়ির মাটি কাটা কাজের মুজুরির আরো ৩লাখ টাকা সদস্যদের দেওয়ার কথা থাকলেও এক টাকাও দেওয়া হয়নি সদস্যদের।

নিমাইখাড়ি পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির নব নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক জানান, গেল বছরের নভেম্বরে নির্বাচিত হলেও ১১মাস পেরিয়ে গেলেও দায়িত্ব বুজে দেননি কমিটির সভাপতি তৎকালিন চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন। গাছ কাটা এবং মাটি কাটার টাকার হিসাব চাওয়ায় খুব্ধ আচরনের শিকার হচ্ছেন তিনি। তিনি জানান কেটে নেওয়া হয়েছে গাছের মূল অংশ। তবে রয়ে গেছে মাটির স্তরে প্রতিটি গাছের কান্ড।

এব্যাপারে জানতে চাইলে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া জানান, গাছ বিক্রির ১০লাখ টাকার মধ্যে ১০শতাংশ ইউনিয়ন পরিষদের তহবিলে জমার নিয়ম থাকলেও তহবিলে কোন টাকা জমা করেননি তৎকালিন চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন। তাছাড়া নিমাইখাড়ি সমবায় সমিতির লেনদেনের হিসাব বিবরনি বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি তাকে।

পিবিএ/এসইউএ/জেডআই

আরও পড়ুন...