এক মাসে ফর্সা হওয়ার ঘরোয়া উপায়


পিবিএ ডেস্কঃ উজ্জ্বল, কোমল ও নিখুঁত ত্বক প্রত্যেক নারীই চান । গায়ের রং ফর্সা করার জন্য আমরা সাধারণত ব্যবহার করি রাসায়নিক পণ্য দিয়ে তৈরি বাজারের ক্রিম। কিন্তু এসকল  ক্রিম বিভিন্ন রাসায়নিক পণ্য দিয়ে তৈরি  হয় বলে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। এমন কি পরে ত্বকের সমস্য  দেখাও দিতে পারে। তবে রং ফর্সা করার ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যা দ্বারা সহজে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করা যায়। এই উপায়ে ধীরে ধীরে উজ্জালতা বৃদ্ধি পেলেও কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

তবে বেশী চিন্তা করতে হবে না, ত্বকের রঙ ফর্সা করতে চাইলে রোজ সকালে ছোট্ট একটি রুটিন মেনে চলুন। মাত্র ৭ দিনে লক্ষ্য করতে পারবেন পার্থক্য, ত্বকের রঙটা হয়ে উঠবে উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত। ১ মাস টানা মেনে চললে দারুণ উজ্জ্বল আর ফর্সা হয়ে উঠবে আপনার রঙ। কিন্তু কীভাবে?

রোজ সকালে যা করবেন-

১) ঘুম থেকে উঠেই এক গ্লাস উষ্ণ পানি খাবেন খালি পেটে। চাইলে সামান্য মধু মিশিয়েও খেতে পারেন। এক গ্লাস উষ্ণ পানি কেবল ত্বক নয়, আপনার বাকি দেহকেও সতেজ করে তুলবে। এবং আপনার পরবর্তী রূপচর্চার জন্য ত্বককে প্রস্তুত করবে।

২) মুখে ভাপ নিন। একটি হাঁড়িতে গরম পানি নিয়ে সেই বাষ্প মুখে লাগান কয়েক মিনিট। খুব বেশী কাছ থেকে বাষ্প লাগাবেন না। খুব বেশী উত্তাপও যেন না লাগে। মুখে ভাপ দেয়া হলে পরিষ্কার তুলো দিয়ে মুখ মুছে নিন।

৩) এবার আসে ফেস মাস্কের পালা। একটি টমেটো নিন। মাঝ থেকে কেটে দুভাগ করে ভেতরের পাল্প সবটুকু বের করে নিন। এর সাথে দিন আধা চামচ লেবুর রস, ১ টেবিল চামচ কাঁচা দুধ, সামান্য মধু। সম্ভব হলে ১ টেবিল চামচ শসার রসও দিন। লেবু ও টমেটো ন্যাচারাল ব্লিচ হিসাবে কাজ করবে, দুধ যোগাবে ময়েশ্চার, মধু দূর করবে ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ আর শসা কমাবে অতিরিক্ত তেল।

এই ফেস মাস্কটি মুখে ও গলায়-হাতে কিংবা অন্যান্য জায়গায় মাখুন। ২০ থেকে ৩০ মিনিট রাখুন। রেখে ধুয়ে ফেলুন ঠাণ্ডা পানি দিয়ে। মুখ মুছে হালকা ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন থাকলে অবশসই সানস্ক্রিন ক্রিম মাখুন।

৪) ত্বকের রঙ ফর্সা করতে রোজ সকালে এক গ্লাস গাজরের জুস খাওয়া অভ্যাস করুন।

পিবিএ/এমএস

আরও পড়ুন...

ঘরে বসেই নিজের বিকাশ একাউন্ট খুলুন