কালিহাতীতে কিশোরীকে জবাই করে হত্যা, কিশোর আহত

মনির হোসেন,টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা সরকারি শামসুল হক কলেজ সামনে নির্মাণাধীন ভবন থেকে সুমাইয়া নামের নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া একই স্থান থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় মনির নামের এক কিশোরকে উদ্ধার টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহত মনিরের অবস্থা আশঙ্কা জনক বলে জানা গেছে।

আজ বুধবার (২৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে সাতটার দিকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে কালিহাতী থানার ওসি মোল্লা আজিজুর রহমান বলেন, সকালে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে জবাই করা এক কিশোরী ও এক কিশোরকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এসময় ওই কিশোর জীবিত ছিল। পরে তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার অবস্থাও আশংকাজনক।

তিনি আরো বলেন, নিহত কিশোরীর নাম সুমাইয়া আক্তার। তিনি উপজেলার পালিমা গ্রামের ফেরদৌস আলীর মেয়ে ও এলেঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। তবে কি কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তা প্রাথমিকভাবে জানতে পারেননি। এ ঘটনায় আহত মনির ১৭ উপজেলার ভাবলা গ্রামের মেহেরের ছেলে ও পরিবহন শ্রমিক হিসাবে কাজ করতো।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. রাজিব পাল বলেন, মনিরের পেট থেকে ভুরি বেরিয়ে পড়েছে। তার গলায় ও গাড়ে কাটা আছে। এছাড়াও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত আছে।

আরও পড়ুন...