‘কুমারী’ শব্দ বাদ দিতে হবে বিয়ের কাবিন নামায়

high-court

পিবিএ,ঢাকা: কাবিননামার (নিকাহনামা) ফর্মের ৫ নম্বর কলামে কনে কুমারী থাকা শব্দটি বাদ দিতে বলেছেন হাইকোর্ট। তবে এর পরিবর্তে অবিবাহিতা শব্দটি যোগ করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া ৪ নম্বর কলামে ‘ক’ সংযুক্ত করে ছেলেদের ক্ষেত্রে বিবাহিত, বিপত্নীক ও তালাকপ্রাপ্ত কিনা তা সংযোজন করতে বলা হয়।

এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি খিজির আহমেদ চৌধুরী সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ রবিবার এ রায় দেন। রায়ে বলা হয়, ‘কুমারী’ শব্দটা বাদ দিতে হবে। কারণ এটা ব্যক্তিগত গোপনীয়তার অধিকারের ব্যাপার। কাবিননামায় এর উল্লেখ থাকা মানে বৈষম্য সৃষ্টি করা। তবে নিকাহ রেজিস্ট্রি ফরমে একটি কলাম যুক্ত করে বরের ক্ষেত্রে অবিবাহিত/বিপত্নীক/তালাকপ্রাপ্ত শব্দগুলো যুক্ত করা যাবে।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না ও আইনুন্নাহার সিদ্দিকা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। আইনজীবী আইনুন্নাহার বলেন, কাবিননামার কলাম ৫-এ কনের ব্যাপারে ‘কুমারী, বিধবা’ বা তালাকপ্রাপ্ত কিনা’ লেখা আছে। এ ক্ষেত্রে আমাদের আপত্তি ছিল ‘কুমারী’ শব্দটা নিয়ে। এই শব্দটি চালেঞ্জ করে মামলা করেছিলাম। এ রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষ আজ রায় দেওয়া হয়।

পিবিএ/বিএইচ

আরও পড়ুন...