কুমিল্লায় ট্রেনের ধাক্কায় পুলিশ কর্মকর্তাসহ নিহত ৪

পিবিএ,লাকসাম প্রতিনিধি: কুমিল্লায় সিএনজিকালে রেলক্রসিং পার হওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় ছিটকে পড়ে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা ও নারীসহ ৪ জন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরো এক যাত্রী।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) সকাল সোয়া ১০টার দিকে নোয়াখালী-লাকসাম রেলপথের নাঙ্গলকোট উপজেলার আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নে তুগুরিয়া রেলক্রসিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন লাকসাম রেলওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল হোসেন। দুর্ঘটনাস্থলটি জেলার মনোহরগঞ্জ ও নাঙ্গলকোট উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত হলেও এটি নাঙ্গলকোট উপজেলার অংশে পড়েছে।

নিহতরা হলেন- অটোরিকশার যাত্রী মাসুদুর রহমান (৬৫) (অবঃ পুলিশ কর্মকর্তা ) সে মনোহরগঞ্জ উপজেলার উত্তর হাওলা গ্রামের সিদ্দিকুর রহমান ছেলে। একই গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে মোহাম্মদ হাবিব (২২), অটোরিকশাচালক উত্তর হাওলা গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৪০)। নাঙ্গলকোট উপজেলার দক্ষিন শাকতলী গ্রামের আফজালুর রহমানের স্ত্রী মহিবুল বেগম (৩৫)। এ ঘটনায় আহত ওই যাত্রীর নাম-পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। তবে তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, নোয়াখালী থেকে ছেড়ে আসা লাকসামগামী ‘নোয়াখালী এক্সপ্রেস’ ট্রেনের সঙ্গে এই দুর্ঘটনা ঘট। সিএনজি অটোরিকশাটি হঠাৎ রেলপথে ওঠে ট্রেনের সামনে চলে আসে। এতে ট্রেনের ধাক্কায় অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলে তিন যাত্রী নিহত হন। পরে লাকসামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মারা যান চালক। আরেকজন যাত্রী আহত হওয়ার তথ্য পেয়েছে পুলিশ। তবে তার সম্পর্কে এখনো বিস্তারিত তথ্য জানা যায়নি। প্রাথমিকভাবে তারা জানিয়েছেন , সিএনজি অটোরিকশাটি মনোহরগঞ্জের উত্তর হাওলা ইউনিয়নের মুন্সিরহাট বাজার থেকে খিলা বাজারের দিকে যাচ্ছিল। নিহতদের মরদেহ তাদের স্বজনরা নিয়ে গেছেন। আর দুর্ঘটনা-কবলিত সিএনজি অটোরিকশাটি সরিয়ে নিয়ে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করা হয়েছে।সংবাদ পেয়ে নাঙ্গলকোট থানা পুলিশ, মনোহরগঞ্জ থানা- পুলিশ লাকসাম জিআরপি পুলিশ, ঘটনাস্থলে উপস্থিত আছেন আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন প্রক্রিয়াধীন।

আরও পড়ুন...