খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাবিতে মানববন্ধন

 

জাবিতে র‍্যাগিংয়ের অভিযোগে ১১ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

পিবিএ,জাবি: কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মানববন্ধন করেছে জাতীয়তাবাদী শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার পাদদেশে ‘জাতীয়তাবাদী শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারী ফোরাম’র ব্যানারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় ফোরামের সভাপতি প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মোহাম্মদ কামরুল আহছান বলেন, ‘বর্তমান ক্ষমতাসীনরা বিরোধীদলকে দমন নিপীড়ন করে দমিয়ে রাখার জন্য নিজেদের প্রয়োজনে আইন বানান। খালেদা জিয়াকে ঠিক একই কারণে অবৈধভাবে কারাগারে আটক করে রেখেছে। দেশের মানুষ আজ ভোটাধিকার ও গণতন্ত্রে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। দেশের আইন ব্যবস্থার কাছে আমাদের দাবি খালেদা জিয়াকে যেন নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়া হয়। আর তা না হলে আমরা কঠোর আন্দোলনের দিকে ধাবিত হব।’

মানববন্ধনে ফোরমের সাধারণ সম্পাদক দর্শন বিভাগের অধ্যাপক কামরুল আহসান বলেন, ‘তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া তার শাসনকালে গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠিত রূপ দিয়েছিলেন। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার সেই প্রতিষ্ঠিত গণতন্ত্রকে হত্যায় মেতে উঠেছে। দেশে এখন বিচারহীনতার সংস্কৃতি চলছে, তারই অংশ হিসেবে খালেদা জিয়া আজ কারাগারে।’

পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জামালউদ্দিন রুনু বলেন, ‘শেখ হাসিনাকে বাংলাদেশের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে। মানুষ তার গণতান্ত্রিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারছে না। আপনারা এ দুঃশাসন বন্ধ করুন, আর না হলে জনগণই এর উচিৎ জবাব দেবে। অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে গণতন্ত্রকে রক্ষার পথ সুগম করুন।’

তিনি আরও বলেন, ‘সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দেখছি, গণতন্ত্রকে হত্যায় তারা কিভাবে মেতে উঠেছে। প্রত্যেকের জানা উচিৎ ক্ষমতার একটি শেষ বিন্দু থাকে, আপনারা সেই ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন। আমরা এ মানববন্ধন থেকে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।’

মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মনোয়ার হোসেন, গণিত বিভাগের অধ্যাপক আবেদা সুলতানা, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক নুরুল ইসলাম, ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক সোহেল রানা, আইআইটি বিভাগের অধ্যাপক ফজলুল করিম পাটোয়ারীসহ অর্ধশতাধিক শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

পিবিএ/এমআর

আরও পড়ুন...