বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে হত্যা: প্রধান আসামী গ্রেফতার

মেজবাহুল হিমেল,রংপুর: গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা থানায় বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে সংঘটিত চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামী বেলাল হোসেনকে গ্রেফতার র‌্যাব-১৩। শনিবার দুপুরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের রংপুর সদর দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এসব তথ্য জানান র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক কমান্ডার রেজা আহমেদ ফেরদৌস।

(র‌্যাব)-১৩ এর অধিনায়ক কমান্ডার রেজা আহমেদ ফেরদৌস বলেন, গত ৬ নভেম্বর দুপুরে গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা থানাধীন বেড়া গ্রামস্থ নদী সংলগ্ন এলাকায় বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে বেল্লাল হোসেনসহ আরো কয়েকজন পূর্বপরিকল্পিত ভাবে লাঠি সোটা, বিভিন্ন সাইজের ভাঙ্গা ইট ও দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রে নিয়ে ছবদেল হোসেন মন্ডল (৭৫) এর উপর হামলা করে হত্যা করে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ছবদেল হোসেন মন্ডলের ছেলে আইয়ুব হোসেন মন্ডল (৫৫) বাদী হয়ে গাইবান্ধার সাঘাটা থানায় ৭ নভেম্বর রবিবার একটি হত্যা মামলা করে যার মামলা নং-৪। ধারা-১৪৩/৩২৩/৩০৭/৩০২/১১৪/৩৪ পেনাল কোড ১৮৬০।

অধিনায়ক আরও বলেন, মামলাটির ছায়াতদন্ত করে। সিপিসি-৩ গাইবান্ধা ক্যাম্পের অভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর থানা এলাকায় মন্ডল হত্যার চাঞ্চল্যকর মামলার এজাহারনামীয় আসামী বেল্লাল হোসেন (৪৮)কে গ্রেফতার কনা হয়েছে।

কমান্ডার রেজা আহমেদ ফেরদৌস বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী হত্যার সাথে সম্পৃক্ততার কথা স¦ীকার করেছে এবং হত্যার সম্পূর্ণ ঘটনা সে বর্ণনা করে। ঘটনার দিনে আসামী বেল্লাল হোসেন ও তার সঙ্গী সাথীরা দেশীয় অস্ত্র ও ভাঙ্গা ইট নিয়ে একত্রিত হয়। এসময় মন্ডলকে বেল্লাল হোসেন লাঠি দিয়ে মারতে থাকে এবং তার হাতে থাকা ভাঙ্গা ইটের টুকরা দিয়ে বুকে সজরে আঘাত করে এবং তার অন্যান্য সহযোগীদের সহায়তায় নদীর উঁচু পাড় থেকে আনুমানিক ২০ফিট নিচে ফেলে দেয়। পরবর্তীতে স্থায়ীয় লোকজনের সহায়তায় মন্ডলকে উদ্ধার করে সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভিকটিমকে মৃত বলে ঘোষনা করে।

আসামীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন এবং অন্যান্য অজ্ঞাতনামা আসামীদের গ্রেফতারের জন্য র‌্যাবের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

পিবিএ/জেডএইচ

আরও পড়ুন...