ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন

চেয়ারম্যান পদে চাচা-ভাতিজা, মেম্বারে ভাই-বোন

তৃতীয় ধাপের অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের ভোটের প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। আর এ ধাপে অনুষ্ঠিত হবে বিরামপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী ২ নম্বর কাটলা ইউনিয়নের নির্বাচন। এই ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রাম।

গ্রামটি দুটি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত। একই গ্রাম থেকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন ১৭ জন প্রার্থী। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদ পাওয়ার জন্য লড়াই করছেন চাচা-ভাতিজা এবং মেম্বার পদে লড়াই করছেন দুই ভাইবোন।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার কাটলা ইউনিয়নের গ্রামগুলোর অলিগলিতে ঝুলছে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা প্রার্থীদের বিভিন্ন পোস্টার। সেখানে দেখা মিলছে চাচা-ভাতিজার পোস্টার। বর্তমান চেয়ারম্যান নাজির হোসেন আনারস মার্কা নিয়ে লড়াই করছেন আগের পদে বহাল থাকার জন্য।

অন্যদিকে তারই ভাতিজা মনসুর আলী ঘোড়া প্রতীকে লড়াই করছেন চাচার বিরুদ্ধে। এছাড়াও একই ওয়ার্ড থেকে ইউপি সদস্য পদে এনামুল হক (বৈদ্যুতিক পাখা) ও তার আপন ছোট বোন সংরক্ষিত নারী আসনের ইউপি পদে বর্তমান ইউপি সদস্য ফাহিমা (সূর্যমুখী ফুল) নির্বাচন করছেন।

অন্য পদে ৭ নম্বর ওয়ার্ড থেকে রওশনারা বিবি (হেলিকপ্টার) ও ৮ নং ওয়ার্ড থেকে সংরক্ষিত নারী আসনের ইউপি সদস্য পদে রোজিনা খাতুন (বক প্রতীক) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

৮নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য পদে সাবেক ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম (তালা), মো. কামরুজ্জামান (আপেল), জিয়ারুল রহমান (ভ্যানগাড়ি), গ্রামের সীমান্তঘেঁষা একটি পাড়া (জোলাপাড়া) থেকে সাবেক ইউপি সদস্য আফিজ উদ্দিন (ফুটবল) ও তারই ভাতিজা বর্তমান ইউপি সদস্য মইনুল ইসলাম (টিউবওয়েল), আতিয়ার রহমান (মোরগ) ও হবিবর রহমান (ঘুড়ি) নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

অপরদিকে ইউপি সদস্য পদে দাউদপুর গ্রামের ৭নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক (টিউবওয়েল) ও তারই ভাতিজা একরামুল হক (তালা), বকুল হোসেন (ফুটবল) ও রশিদুল ইসলাম (মোরগ) নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে এ নির্বাচনে সকল প্রার্থীই নিজেকে যোগ্য ও বিপুল ভোট পেয়ে বিজয়ী হবেন বলে দাবি করছেন।

ওই গ্রামের শফিক, রফিক, কবির নামের কয়েকজন ভোটার জানায়, নির্বাচনে দাউদপুর গ্রামের একই পাড়া থেকে একই পদে একাধিক প্রার্থী নির্বাচন করছেন। প্রার্থীরা অধিকাংশ ভোটারের প্রতিবেশী ও আত্মীয় হওয়ায় পছন্দমতো প্রার্থী নির্বাচনে আমরা ভোটাররা অনেকটাই বিপাকে পড়েছি। তবে এলাকার উন্নয়নের জন্য আমরা যোগ্য প্রার্থীকেই ভোট দেব।

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় অফিসের তথ্যমতে, ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামে ৭নং ওয়ার্ডে ১ হাজার ৬৪৪ ও ৮নং ওয়ার্ডে ১ হাজার ৬১৭ জনসহ দুই ওয়ার্ডে মোট ৩ হাজার ২৬১ জন ভোটার রয়েছে।

আরও পড়ুন...