ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে মুখ শুরু করেছেন শিক্ষার্থীরা

পিবিএ,রাজশাহী: দীর্ঘদিন ধরেই নানা অপকর্মে জড়িত সৌরভসহ রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ছাত্রলীগ নেতারা। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। র‌্যাগিংয়ের নামে নির্যাতন, ছাত্রীদের উত্যক্ত ও যৌন হয়রানির অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে। ক্যাম্পাসের একটি কক্ষ ব্যবহৃত হতো টর্চার সেল হিসেবে বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের। এ অবস্থায় শিক্ষাবিদরা বলছেন, বিচারহীনতা ও রাজনৈতিক লেজুড়ভিত্তির কারণে নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে ছাত্র সংগঠনের নেতারা।

অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দীন আহম্মেদকে লাঞ্ছনার পর রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট কলেজ জুড়ে ক্ষোভ। মুখ খুলতে শুরু করেছেন শিক্ষার্থীরা। নানা অভিযোগ উঠে এসেছে শিক্ষকদের কাছ থেকেও।

জানা গেছে, ২০১১ সালে ঘোষণা করা হয় পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ছাত্রলীগের কমিটি। পরে ২০১৪ সালে কমিটিতে যুগ্ম সম্পাদকের পদে ঠাঁই পান কামাল হোসেন সৌরভ। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, কমিটি ঘোষণার আগ থেকেই চলতো তার অত্যাচার।

শুধু সৌরভ নয় ছাত্রলীগের বেশিরভাগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে রয়েছে নির্যাতনের অভিযোগ। সবচে বেশি র‌্যাগিংয়ের শিকার হতেন নতুন ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা। ক্ষিপ্ত হলে কখনো কখনো ‘র্টচার সেলে’ চলতো অমানুষিক নির্যাতন।

শিক্ষার্থীদের একজন বলেন, ‘তারা ভর্তি বাণিজ্য করে। তারা নির্দিষ্ট পরিমান চাঁদা নেয়। চাঁদা না দিলে কলেজে প্রবেশ করতে দেয় না। শিক্ষার্থীদের তারা নানাভাবে হয়রানি করে।’

আরো এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমাকে বাথরুমের পাশে কমন রুমে আটকে রাখে। অত্যাচার করে। বলে টাকা নিয়ে আয় তা না হলে তোকে ছাড়বো না।’

দিকে, সৌরভ ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে শুরু করেছেন ছাত্রীরাও। তারা বলছেন, ক্যাম্পাসে বিভিন্ন সময় যৌন হয়রানি করা হতো। প্রতিনিয়ত এমন অপকর্ম চললেও নির্যাতনের ভয়ে অভিযোগ দিতেননা ভুক্তভোগীরা।

কয়েকজন ছাত্রী জানান রেজিষ্ট্রার বই থেকে কোনোভাবে নাম্বার সংগ্রহ করে ফোন দেয়। নতুন ছাত্রী এলেই তাদের পেছনে লাগে। প্রস্তাব দেয় রাজি না হলে হুমকি দেয়।

শুধ নির্যাতন ও যৌন হয়রানি নয় শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনাও ঘটটো অহরত। যে কোনো ইস্যুতে শিক্ষকদের ওপর চড়াও হতো সৌরভসহ ছাত্রলীগের বেশিরভাগ নেতাকর্মীরা। এ অবস্থায় শিক্ষাবিদরা বলছেন, রাজনৈতিক লেজুরত্তির কারণে ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীরা নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে।

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক হাসান আজিজুল ইসলাম বলেন, ‘বর্তমান শিক্ষাঙ্গনের যে পরিস্থিতি তাতে এ ঘটনায় অবাক হওয়ার কিছু নেই। তবে চাইবো শৃঙ্খলাবোধ, সম্মানবোধ, সামাজিক বোধ অটুট থাকুক।’

২০১৫ সালে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ছাত্রলীগের কমিটির মেয়ার শেষ হলেও নতুন কমিটি গঠন করা হয়নি।

পিবিএ/ইকে

আরও পড়ুন...