ছয়জন শিক্ষকের বেতন ভাতা বন্ধের অভিযোগ প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে

সোহাগ হাসান,সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জের তাড়াশে রঘুনিলী মঙ্গলবাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি সোনাতন দাস। তিনি ওই বিদ্যালয়ে প্রভাব খাটিয়ে ছয়জন শিক্ষকের বেতন ভাতা বন্ধ করে দিয়েছে। দুই মাস যাবত বেতন ভাতা বন্ধ করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী শিক্ষকদের।

একারণে শনিবার ও রবিবার থেকে বেতন ভাতার দাবিতে কর্মবিরতি চলছে শিক্ষকদের। শিক্ষকদের কর্মবিরতিতে রীতিমতো দুশ্চিচিন্তায় পড়েছেন ২০২১ ও ২০২২ শিক্ষাবর্ষের এসএসসি পরিক্ষার্থীরা।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে রঘুনিলী মঙ্গলবাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভুক্তভোগী শিক্ষক মুজিবুর রহমান, শ্রী গোবিন্দ কুমার সরকার, মনোয়ার হোসেন, শফিকুল ইসলাম, আব্দুল করিম, দিলিপ কুমার ভৌমিক, রেজাউল করিম ও মাসুদ রানা বলেন, রঘুনিলী মঙ্গলবাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউজ্জামান নান্নু ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি অর্থ আত্মসাত, সেচ্ছাচারিতা ও স্বজনপ্রীতির প্রতিবাদ করায় আমাদের বন্ধ করে দিয়েছে। এর আগে প্রতিবাদ করায় বেতন ভাতা পাঁচবার বন্ধ রাখা হয়েছিল। বেতন না পাওয়া পর্যন্ত এ কর্মবিরতি চালিয়ে যাবেন তারা।

রঘুনিলী মঙ্গলবাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী আম্বিয়া খাতুন, ফারিহা খাতুন ও ছাত্র মনিরুল ইসলাম, আব্দুর রউফ, জিহাদ হাসান বলেন, শিক্ষকদের কর্মবিরতির প্রথম দিনেই পাঠদান ব্যাহত হয়েছে। এভাবে চলতে থাকলে পড়ালেখায় ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

রঘুনিলী মঙ্গলবাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রবিউজ্জামান নান্নু বলেন, ২০১৭ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত স্কুলের ছাত্র/ছাত্রীদের মাসিক বেতন ভাতা উত্তোলন করে ফান্ডে জমা করেননি ঐ ছয় শিক্ষক। বারংবার তাদের বলা হলে তারা স্কুল ফান্ডে টাকা জমা দেননি। এর কারণে তাদের বেতন ভাতা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

রঘুনিলী মঙ্গলবাড়ীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি সোনাতন দাস জানান, ওই ছয়জনের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের টাকা তছরুপের অভিযোগ উঠেছে। যার কারণে তাদের বেতন ভাতা বন্ধ রাখা হয়েছে।

তাড়াশ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফকির জাকির হোসেন বলেন, শিক্ষকদের কর্মবিরতি অনাকাঙ্খিত। প্রয়োজনে তারা শিক্ষা দপ্তরের উর্ধ্বতনের হস্তক্ষেপ চাইতে পারেন।

 

আরও পড়ুন...