জামালপুরে করোনায় চিকিৎসাধীন বৃদ্ধের ময়মনসিংহে মৃত্যু

 

রাজন্য রুহানি,জামালপুর: করোনায় আক্রান্ত হয়ে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার শিমলাপল্লী এলাকার তায়েজ আলী নামে এক বৃদ্ধ ময়মনসিংহে মারা গেছেন। সত্তর ঊর্ধ্ব ওই বৃদ্ধ বৃহষ্পতিবার (৯ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ময়মনসিংহ এসকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। করোনায় এ নিয়ে এ উপজেলায় ১০ ঘন্টার ব্যবধানে দুজন মারা গেলেন। এর আগে বুধবার (৮ জুলাই) রাতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা শিক্ষকের মৃত্যু হয়।

ময়মনসিংহ এসকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া তায়েজ আলী সরিষাবাড়ী উপজেলার সরিষাবাড়ী পৌরসভার শিমলাপল্লী (কুমলিবাড়ি) গ্রামের মৃত সুরুজ আলীর ছেলে।

জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. মাহফুজুর রহমান সোহান জানান, তায়েজ আলী আগে থেকেই বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন। ২৯ জুন নমুনা পরীক্ষায় তার দেহে করোনা শনাক্ত হয়। ৩০ জুন তাকে জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ১ জুলাই তাকে ময়মনসিংহের এসকে হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহষ্পতিবার সকালে তিনি মারা যান।

তিনি আরও জানান, এর আগে বুধবার (৮ জুলাই) রাত ১১টার দিকে জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে করোনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মহিউদ্দিন (৫৫) নামে এক শিক্ষকের মৃত্যু হয়। তার বাড়িও জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলায়। সরিষাবাড়ী পৌরসভার মাইজবাড়ি গ্রামের মৃত কাদিম উদ্দিনের ছেলে মহিউদ্দিন উপজেলার কোনাবাড়ি দাখিল মাদরাসার সহকারী শিক্ষক ছিলেন।

বৃহষ্পতিবার সকালে সংশ্লিষ্ট কমিটি ও স্বাস্থ্যবিধি মোতাবেক তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তার মৃত্যুর মাত্র ১০ ঘণ্টা পর একই উপজেলায় আরও একজনের মৃত্যুতে এলাকায় শোক ও আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

সরিষাবাড়ীর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব উদ্দিন আহমদ জানান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সংশ্লিষ্ট কমিটি ও স্বেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে মারা যাওয়া তায়েজ উদ্দিনের লাশ দাফন করা হবে। তিনি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করায় তার বাড়ি লকডাউন করার প্রয়োজন নেই। তবে তার সংস্পর্শে থাকা ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য আরটি-পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হবে।

পিবিএ/জেডএইচ

আরও পড়ুন...