ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রীকে পেটালেন শিক্ষক

পিবিএ,কালীগঞ্জ: কালীগঞ্জে দ্বিতিয় শ্রেণরি ছাত্রীকে মারধর করার অপরাধে ক্লাস চলাকালীন সময়ে শ্রেণীকক্ষে ঢুকে এক শিক্ষিকাকে ছাত্রী মারধরের কারন জানতে চান অভিভাবক স্বামী-স্ত্রী আব্দুল আলিম ও তার স্ত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার দুপুরে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌর এলাকার আড়পাড়া শিবনগর সরকারী মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। জিঙ্গাসাবাদের এক পর্যায়ে শিক্ষীকা ক্ষিপ্তহয়ে অভিবাবকদের উপর চড়াও হয়।

তার এক পর্যায়ে ওই শিক্ষিকা ও অভিভাবক কথা কাটাকাটির ও ধাক্কাধাক্কির সৃষ্টির হয় । স্কুলে থাকা অন্য শিক্ষকরা ঠেকাতে আসলে শিক্ষিকা সুলতানা রিজিয়া সারমিন শ্রেণী কক্ষের জানালায় আঘাত লেগে বাম হাতটি চটে যায়। এ ঘটনার পর দোষি ব্যক্তির শাস্তির দাবিতে তার সহকর্মীসহ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সরকারী আড়পাড়া শিবনগর মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা অর্চণা রাণী জানান, ঘটনার দিন সকালে বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী জুয়াইরিয়া লাবিবা নামের এক শিক্ষার্থী শ্রেণিকক্ষে মনযোগী না হওয়া ওই শিক্ষিার্থী সামান্য বকাঝকা করেন। দুপুরে ছুটির পর ওই শিক্ষার্থী বাড়ি চলে যায়। এরপর দুপুর দুইটার পর ওই মেয়ের বাবা আব্দুল আলিম ও তার স্ত্রী ক্ষিপ্ত হয়ে স্কুলে প্রবেশ করে। ওই শিক্ষিকাকে মারধর করে হাত ভেঙে দেয়।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে আব্দুল আলিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তার সন্তানকে মারার কারনে তিনি শুনতে স্কুলে গেলে ওই শিক্ষিকা তেড়ে আসলে সামান্য ধাক্কা ধাক্কি হয়। এ সময় ওই শিক্ষিকা পড়ে গেলে তার হাতে আঘাত লাগে। তাকে কোনভাবেই মারা হয়নি। শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন জানান, স্কুল চলাকালীন সময়ে আক্রমাত্বকভাবে কিছু করা হলে তা দেখে ছোট ছোট শিশুরা ভয় পায়। ওই অভিভাবকের কোন কথা থাকলে তিনি সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরে অভিযোগ দিতে পারতেন। তা না করে স্কুল চলাকালীন সময়ে শিক্ষিকার গায়ে হাত তোলাটা ঠিক হয়নি।

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি জগদ্বীশ চন্দ্র জানান, স্কুল চলাকালীন সময়ে একজন শিক্ষকের উপর হামলা করে পিটিয়ে হাত ভেঙে দেয়াটা অমানবিক এবং তা মেনে নেওয়া যায় না। আমরা দোষি ব্যক্তিদ্বয়ের শাস্তির দাবিতে বিকালেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও কালীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। পরবর্তীতে সংগঠনের পক্ষ থেকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে কঠোর কর্মসূচী দেয়া হবে।

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সূবর্ণা রানী সাহা জানান, আমি বিকালে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জানিয়েছি বিয়টি আইনগত ব্যবস্থা নিতে।

কালীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাঃ মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, ঘটনাটি জানার পর পুলিশ ইতোমধ্যে আব্দুল আলিমের স্ত্রী নুর জাহানকে আটক করা হয়েছে। শিক্ষকরা আমাকে জানিয়েছেন স্কুল ছাত্রীর পিঠে হাত দিয়ে ঘোষে দাগ বানিয়েছে। আমি তদন্ত পূর্বক সত্য উৎঘাটনের চেষ্টা করছি এবং অমি নিজে মেয়েটিকে দেখলে বুঝবো এটি মারের দাগ নাকি আঙ্গুল দিয়ে ঘষার দাগ।

পিবিএ/আরিফ মোল্ল্যা/বিএইচ

আরও পড়ুন...