তারেক রহমান থেকে সাবধান: ওবায়দুল কাদের

রাজন্য রুহানি,জামালপুর: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘হাওয়া ভবনের যুবরাজ জিয়াউর রহমানের সন্তান শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য গ্রেনেড ছুঁড়েছিলো। সে কত টাকার মালিক তা কেউ বলতে পারে না। দেশে তার কতটা বাড়ি আছে, কতটা মার্কেট আছে, তাও কেউ জানে না। বড়লোকদের বাড়ির সামনে লেখা থাকে কুকুর থেকে সাবধান। আমি দেশবাসীকে বলি তারেক রহমান থেকে সাবধান।’

সোমবার (২৮ নভেম্বর) বিকেলে জামালপুর জিলাস্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, কারবালায়ও শিশু হত্যা হয়নি, নারী হত্যা হয়নি। কিন্তু পঁচাত্তরে অবলা নারী ও শিশুকেও হত্যা করা হয়েছে। এরপর জয়বাংলা নিষিদ্ধ করা হয়, ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ নিষিদ্ধ করা হয়, মুক্তিযুদ্ধের মূল্যবোধও নিষিদ্ধ হয়ে যায়। আর এসবের হোতা খন্দকার মোশতাকের প্রধান সেনাপতি জিয়াউর রহমান।

১০ ডিসেম্বরের সমাবেশকে কেন্দ্র করে বিএনপিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি শান্তিপূর্ণভাবে মিটিং করুক আমরাও চাই। কিন্তু আগুন আর লাঠি নিয়ে এলে খেলা হবে। আপনারা আগুন আর লাঠি নিয়ে খেলবেন, আর আমাদের নেতাকর্মীরা কি ললিপপ খাবে, আঙুল চুষবে?

সম্মেলন উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহর সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি ও শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বাবু অসীম কুমার উকিল এমপি, সদস্য মারুফা আক্তার পপি ও উপাধ্যক্ষ রেমন্ড আরেং।

অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন সাবেক মন্ত্রী আলহাজ আবুল কালাম আজাদ এমপি, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি, ইঞ্জিনিয়ার মোজাফফর হোসেন সিআইপি এমপি, বেগম হোসনেয়ারা এমপি, পৌর মেয়র ছানোয়ার হোসেন ছানু প্রমুখ।

সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে এডভোকেট মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহকে পুনঃনির্বাচিত এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বিজন কুমার চন্দ ও সহসভাপতি হিসেবে ফারুক আহম্মেদ চৌধুরীর নাম ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুন...