দিল্লিকা লাড্ডু ভাঙ্গছে সংসার

পিবিএ ডেস্ক: কথায় আছে  ‘দিল্লিকা লাড্ডু জো খায়া ও পস্তায়া জো নেহি খায়া ও ভি পস্তায়া’ । এবার স্বামীকে বেশি লাড্ডু খাইয়ে সংসার হারাতে বসেছে এক স্ত্রী। স্ত্রী শুনেছেন  তান্ত্রিকের কথা এতো  বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য মামলা করেছেন স্বামী। বিবাহ বিচ্ছেদের পেছনে রয়েছে লাড্ডু। তান্ত্রিকের কথা শুনে স্বামীকে শুধু লাড্ডুই খাওয়াচ্ছিলেন স্ত্রী। আর তাতে বিরক্ত হয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য মামলা করে বসলেন স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশে।  খবর ইন্ডিয়া টুডের।

প্রতিবেদনে বলা হয়, উত্তর প্রদেশের মিরাটে স্বামী অসুস্থ হয়ে পড়ায় স্ত্রী চিন্তিত হয়ে এক তান্ত্রিকের কাছে যান। তান্ত্রিক ওই স্ত্রীকে পরামর্শ দেন লাড্ডু ছাড়া অন্য কোনও খাবার না খাওয়াতে। এরপর থেকে আর কোনও খাবার তাকে খেতে না দেওয়ায় স্ত্রীর ওপর বিরক্ত হয়ে পারিবারিক আদালতে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা করেন ওই ব্যক্তি।
তিন সন্তানের এই দম্পতির প্রথম কয়েক বছর বেশ ভালোই কেটেছে। সমস্যা তৈরি হয় গত বছর। স্ত্রী দাবি করেন, কিছুদিন যাবৎ তার স্বামী বারবার অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। স্বামীর অসুস্থতা নিয়ে চিন্তিত হয়ে এক তান্ত্রিকের শরণাপন্ন হন স্ত্রী। তান্ত্রিকের পরামর্শ মোতাবেক স্বামীকে শুধু লাড্ডুই খেতে দিচ্ছেন। এছাড়া অন্য কোনও খাবার তিনি খেতে দেন না।

স্বামীর দাবি, দিন-রাত স্ত্রী শুধু লাড্ডুই খেতে দিচ্ছেন। সকাল-সন্ধ্যা মোট আটটি লাড্ডু খেয়েই দিন কাটছে তার। লাড্ডু খেতে খেতে বিরক্ত হয়ে অন্য খাবার চাইলেও তান্ত্রিকের কথা অমান্য করার সাহস নাকি তার স্ত্রীর নেই।

এদিকে ক্ষুধার জ্বালায় স্বামীর অবস্থা যায় যায়। অতিষ্ট হয়ে বাড়ির বাইরে গিয়ে বেশিরভাগ দিনই নিজের ইচ্ছামতো খাবার খেয়েছেন। কিন্তু, যত দিন যাচ্ছে স্ত্রী তান্ত্রিকের ওপর ততই নির্ভরশীল হয়ে পড়ছেন। তাই বাধ্য হয়েই বিবাহবিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

তবে, ওই নারী আদালতকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রয়োজনে স্বামীকে ছাড়তে পারবেন কিন্তু তান্ত্রিকের কথা অমান্য করতে পারবেন না। এখন আদালত কি সিদ্ধান্ত দেবেন সেটাই দেখার বিষয়।

পিবিএ/বাখ

আরও পড়ুন...