দেশের সব জায়গায় দ্রুত বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে : বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

মাহফুজ কিশোর,কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুমিল্লা): সরকার দুর্গম চর, পার্বত্য চট্টগ্রামে সোলার প্যানেলে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করবে এবং বাকী অঞ্চলে বিদ্যুৎ লাইন দ্রুত পৌঁছে দিবে বলে অভিমত দিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জনাব নসরুল হামিদ বিপু, এমপি। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) সমাজ গবেষণা গ্রুপ আয়োজিত ওয়েবনারে এসব কথা বলেন অতিথি আলোচক এই প্রতিমন্ত্রী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ গবেষণা দলের নিয়মিত ওয়েবনারের (ওয়েব সেমিনার) ১৬তম পর্বে ‘বাংলাদেশের জ্বালানী খাতের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক আলোচনায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তিনি। বুধবার (০১ জুলাই) রাত ৯টায় ওয়েবনারটি অনুষ্ঠিত হয়।

ওয়েবনারে অংশ নিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের সকল অঞ্চলের মানুষের জন্য বিদ্যুৎ চাহিদা নিশ্চিত করতে সরকার দুর্গম চর, পার্বত্য চট্টগ্রামে সোলার প্যানেলে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করবে এবং বাকী অঞ্চলে বিদ্যুৎ লাইন দ্রুত পৌঁছে দিবে।’

প্রতিমন্ত্রী জানান, ‘আমাদের মত উন্নয়নশীল দেশে যেখানে প্রাকৃতিক সম্পদ কম সেখানে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য মিক্সড ফুয়েলে যাওয়া উত্তম। সরকার ধীরে ধীরে কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে বের হয়ে আসবে। আমাদের পাওয়ার সেক্টর মাস্টার প্ল্যানের প্রাক্কলন অনুযায়ী আগামী ২০৪১ সালে দেশের বিদ্যুতের চাহিদা হবে ৬০ হাজার থেকে ৭০ হাজার মেগাওয়াট। এজন্য আমরা হঠাৎ করে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। আমাদের বিদ্যুতের ব্যবহার যত বেশি বৃদ্ধি পাবে হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট ইনডেক্সে আমরা ততো ভালো অবস্থায় থাকবো। এজন্য আমাদের সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।’

ওয়েবনার শেষ করে ‘দারুণ এক সন্ধ্যা কাটলো’ উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী তার ফেসবুকে লিখেন, ‘বাংলাদেশ এখন অর্থনৈতিকভাবে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের এই চাকাকে সচল রাখতে সাশ্রয়ী ও সহজলভ্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সরবরাহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। শিক্ষার্থীদের অনেক প্রশ্ন ও পরামর্শ এবং দেশ নিয়ে ভাবনা আমাদেরকে আগামীদিনের সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখায়। তরুণদের সাথে এরকম মুক্ত আলোচনা সবসময়ই দারুণ উপভোগ করি।’

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কৃষ্ণ কুমার সাহার পরিচালনায় ওয়েবনারটিতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন প্রান্তের সাংবাদিক, গবেষক, এনজিও কর্মী, শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

উল্লেখ্য, মহামারি করোনাভাইরাসের সঙ্কটকালে সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের জ্ঞানচর্চা চলমান রাখার লক্ষ্যে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ গবেষণা গ্রুপ নিয়মিতভাবে ওয়েবনারের আয়োজন করে আসছে। আগামীতেও তাদের এই আয়োজন অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।

পিবিএ/এমআর

আরও পড়ুন...