নারী নির্যাতনের মিথ্যা মামলা করায় বাদী গ্রেফতার

পিবিএ,সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জে জমির বিরোধ নিয়ে প্রতিপক্ষকে দমাতে মিথ্যা নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা করায় উল্টো বাদী সুমাইয়া পারভীন উষাকে (২৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
সোমবার রাতে সিরাজগঞ্জ পৌরসভার সয়াগোবিন্দ (থানা) রোডস্থ তার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত সুমাইয়া পারভীন উষা একই মহল্লার মো. বেলাল হোসেনের মেয়ে।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) বেলা ১২টার দিকে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলা সুত্রে জানা যায়, গত ২৮ মার্চ ২০২২ইং তারিখে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-০৩) এর ৯ (৪) (খ)/৩০ ধারায় নারী ও শিশু পিটিশন ৯৮/২০২২নং মো. হৃদয় সেখ ওরফে পাপ্পু (২৫) এর নামে মামলা দায়ের করে। উক্ত পিটিশন ৯৮/২০২২ বাদীর দায়েরকৃত পিটিশন ৯৮/২০২২ মামলায় সত্যতা প্রমানের জন্য আদালত পিবিআই সিরাজগঞ্জ এর এস আই (নিঃ) মো. রায়হান আলী শেখকে তদন্তের প্রদান করেন। এস আই মো. রায়হান আলী শেখ মামলার বাদী সুমাইয়া পারভীন উষাসহ ৫ জনের জবানবন্দি গ্রহণ করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জবানবন্দি পর্যালোচনা করে মামলাটি মিথ্যা মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করে। পরে উক্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আদালত গত ৩ নভেম্বর ২০২২ইং তারিখে মামলাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা মর্মে নারাজী নামঞ্জুর করে।

পরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ শেখ মো. নাসিরুল হক আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করায় বাদীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সিরাজগঞ্জ সদর থানাকে নির্দেশ দেন। সদর থানা আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী বাদী সুমাইয়া পারভীন উষার বিরুদ্ধে গত ১ ডিসেম্বর মো. হৃদয় সেখ ওরফে পাপ্পু বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করে। সেই মামলায় সোমবার রাতে সুমাইয়া পারভীন উষাকে তার বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর থানার উপ-পরিদর্শক মো. হুসাইন আলী বলেন, সুমাইয়া পারভীন উষা নারী ও শিশু দমন আইনে দায়ের করা মামলাটি মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় আদালত তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দেন। মিথ্যা মামলা করার অপরাধে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের হয়। সেই মামলা তাকে আটক করে আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন...