প্রাণঘাতি সংঘাত আর অস্ত্র দিয়ে শান্তি ফেরানো যায় না

ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক’র ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক এর ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর ২০২২) সকালে জেলা শহরের মারমা উন্নয়ন সংসদ প্রাঙ্গনে জাতীয় সঙ্গিতের মধ্য দিয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক এর কেন্দ্রীয় সভাপতি শ্যামলকান্তি চাকমা তরু ও সাধারন সম্পাদক মিটন চাকমা।

পরে ইউনাইটেড পিপল্স যেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) এর বিগত ৫ বছরের বিভিন্ন জনকল্যাণ মূখী কার্যক্রমের দেয়ালিকা উন্মোচন শেষে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে পার্টির জন্য আত্মত্যাগীদের স্মরণ করে এক মিনিট নীরবতা পালন করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক এর কেন্দ্রীয় সদস্য সুলেন চাকমার সঞ্চালনায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি শ্যামল কান্তি চাকমার সভাপতিত্বে এতে প্রধান বক্তা ছিলেন, কেন্দ্রীয় সাধারন মিটন চাকমা। ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অমর চাকমার স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জনসংহতি সমিতির খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সভাপতি প্রীতি খীসা।

এ সময় ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক এর কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য প্রচার ও গবেষনা সম্পাদক বরুণ (কার্বারী) চাকমা, পিসিপির কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক রয়েল চাকমাসহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা এতে বক্তব্য রাখেন। এতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক অমল কান্তি চাকমাসহ সিনিয়র নেতারা এতে অংশ নেন।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন,প্রাণঘাতি সংঘাত আর অস্ত্র দিয়ে শান্তি ফেরানো যায় না। আন্দোলনের নামে প্রসীত খীসা ও সন্তু লারমারা জুম্ম জাতির সাথে প্রতারণা করে আসছে মন্তব্য করে বলেন, আঞ্চলিক পরিষদে দুর্নীতির আখড়া গড়ে তুলেছে সন্তু লারমা। সন্তু-প্রসীতদের অস্ত্রধারীরা পাহাড়ের শান্তি নষ্ট করে হত্যা,গুম,খুন করে অরাজকতায় লিপ্ত করেছে। তাদের লক্ষ স্বাধীন বাংলাদেশকে ভিন্ন রাষ্ট্রে পরিণত করা।

এ ধরনের স্বপ্ন কোন দিন বাস্তবায়ন হবে জানিয়ে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে পাহাড়ের চলমান শান্তির পথ আরো সুগম করে বলে উল্লেখ করেন। এ সময় ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক এর কেন্দ্রীয় সভাপতি শ্যালম কান্তি চাকমা (তরু) তার বক্তব্যে বলেন, অধিকার আদায়ে জনগণকে সাথে নিয়ে অনেক দুরের পথ পারি দিতে হবে। জনগণ সংগঠনের প্রাণ শক্তি উল্লেখ করে তিনি জনগণের পাশে থাকবো সব সময়। তাই অশান্তি ও অস্ত্রের পথ ছেড়ে ষড়যন্ত্রকারীদের শান্তির পথে হাঠার আহবান জানান।

উল্লেখ যে, ২০১৭ সালের ১৫ নভেম্বর (বুধবার) প্রসীতপন্থী ইউপিডিএফ থেকে দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের খাগড়াপুর কমিউনিটি সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে এ পার্টি পথচলা শুরু করে। সে সময় তপন জ্যোতি চাকমা (বর্মা) আহবায়ক ও জলেয়া চাকমা তরু সদস্য সচিব ছিলেন। পরে প্রতিষ্ঠাকে বিরোধী সংগঠন হত্যার পর সে সংগঠনের সভাপতির দায়িত্ব কাঁদে নেন, শ্যামল কান্তি চাকমা তরু।

আরও পড়ুন...