বাবাকে ছাড়াই ছেলের মরদেহ দেশে আনা হবে

পিবিএ ডেস্ক: শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাংসদ শেখ সেলিমের নিহত নাতি জায়ান চৌধুরীর লাশ মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। তবে তার জামাতা মশিউল হক চৌধুরীর পায়ের জখম গুরুতর হওয়ায় তাকে এখন দেশে ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয়। সোমবার (২২ এপ্রিল) সকালে নিহত জায়ানের বাসায় তার স্বজনদের সহমর্মিতা জানানো শেষে এ কথা জানান শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ।

সোমবার সকাল থেকে শেখ সেলিমের বনানীর বাসায় ভিড় করতে দেখা যায় স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের। এসেছেন কয়েকজন মন্ত্রী ও রাজনৈতিক নেতা। তবে নিকটাত্মীয় ছাড়া এই মুহূর্তে কাউকে বাসায় ঢুকতে দিচ্ছে না আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। নিহতের মাগফিরাত কামনায় বাসায় ভেতরে চলছে কোরআন ও দোয়া দরুদ পাঠ। নিহত জায়ানের পরিবার এ বাসাতে থাকতো বলে সেখানে দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে।

নিহতের স্বজনরা জানান, কয়েকদিন আগে শেখ সেলিমের মেয়ে শেখ সোনিয়া, তার স্বামী মশিউল হক চৌধুরী প্রিন্স ও দুই ছেলে জায়ান এবং জোহানকে নিয়ে শ্রীলঙ্কায় বেড়াতে যান। তারা কলম্বোর পাঁচ তারকা হোটেল সাংগ্রি-লায় অবস্থান করছিলেন। স্ত্রী সোনিয়া ও ছোট ছেলে জোহানকে হোটেল রুমে রেখে রোববার (২১ এপ্রিল) সকালে বড় ছেলে জায়ানকে সঙ্গে নিয়ে হোটেলের নিচ তলায় রেস্টুরেন্টে নাস্তা করতে যান মশিউল হক। ঠিক তখন হোটেলে নিচতলাসহ শ্রীলঙ্কার বিভিন্ন স্থানে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে বলে জানায় শেখ সেলিমের পরিবার। হামলায় মশিউল হক চৌধুরী গুরুতর আহত হলেও মারা যান তার ছেলে জায়ান চৌধুরী। তবে হোটেল রুমে থাকা সোনিয়া ও ছোট ছেলে জোহানের কোন ক্ষতি হয় নি। খবর পাওয়ার পর রোববার বাংলাদেশ থেকে পরিবারের কয়েকজন সদস্য কলম্বোয় গেছেন।

পিবিএ/এমএস

আরও পড়ুন...