বিএনপি নেতাকর্মীদের হত্যা করাই আ’লীগের খেলা: রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বাংলাদেশ এখন বধ্যভূমি। আওয়ামী দুঃশাসন এখন ভয়ংকর রুপ ধারণ করেছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের হত্যা করা যেন তাদের খেলায় পরিণত হয়েছে। এ খেলার কথা তারা কয়েকদিন আগেই ঘোষণা দিয়েছিল। খেলার পরিণতি এখন দেশব্যাপী দেখা যাচ্ছে। বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে হামলা চালানো হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘আজকেই (বুধবার) তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, বিএনপির সব সমাবেশ প্রতিহত করা হবে। এর আগে সরকারের শীর্ষপর্যায় থেকেও বিএনপির কর্মসূচি প্রতিহতের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও শাসকদলের ক্যাডারদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে হামলা চালাতে লেলিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মুন্সিগঞ্জে বিএনপির সমাবেশে পুলিশের হামলার প্রতিবাদে এ সংবাদ সম্মেলন হয়।

লিখিত বক্তব্যে রিজভী বলেন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে হত্যা ও জখমের প্রতিবাদে কেন্দ্রের পূর্বঘোষিত শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুরে পুলিশ হামলা চালিয়েছে। নির্বিচারে গুলি করে শতাধিক নেতাকর্মীকে গুরুতর আহত করেছে।

তিনি বলেন, পুলিশের নির্মম হামলায় সাংবাদিকরাও রেহাই পায়নি। এ কর্মসূচি ছিল অসহায় ও বঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর কর্মসূচি। জনগণের দাবির প্রতি সংহতি জানাতেই বিএনপির কর্মসূচির ওপর সরকারের পেটোয়া বাহিনী ক্ষুধার্ত নেকড়ের মতো ঝাঁপিয়ে পড়ে।

রিজভী বলেন, দেশের মানুষ দুঃশাসনের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে। গুলি করে, হত্যা করে, হামলা করে প্রতিবাদী কন্ঠরোধ করা যাবে না। সরকারের পতন ঠেকানো যাবে না। মুন্সিগঞ্জে পুলিশি হামলা, গুলিবর্ষণ ও নেতাকর্মীদের গুরুতর আহত করার পৈশাচিক ঘটনায় আমি তীব্র ধিক্কার, নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। গুরুতর ও আহত নেতাকর্মীদের সুস্থতা কামনা করছি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিভাগীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপু, বেনজীর আহমেদ টিটো, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন প্রমুখ।

আরও পড়ুন...