বিদ্রোহী কবিতার শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে গাইবান্ধায় বইপড়া কর্মসূচি

মোঃরিফাতুন্নবী রিফাত,গাইবান্ধা: স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী, মুজিববর্ষ ও কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতার শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে মঙ্গলবার গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালীতে মাসব্যাপী বইপড়া কর্মসূচি শুরু হয়েছে। গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাদিয়াখালী নজরুল চর্চা কেন্দ্র এই কর্মসূচির আয়োজন করে। প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন আনুষ্ঠানিকভাবে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

বইপড়া কর্মসূচি উপলক্ষে বাদিয়াখালীর চকবরুলে সংগঠনের চত্বরে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পবিত্র কোরআন তেলোয়াত ও গীতাপাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। সংগঠনের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অব.) মঈনুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য দেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক ফেরদৌসী জাহান সিদ্দিকা। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন গাইবান্ধা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর খলিলুর রহমান, ফ্রিল্যান্স রাইটার ও গবেষক এ.কেএম এনায়েত কবির, সংগঠনের উপদেষ্টা সাবেক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরিফুল হক সিদ্দিকী প্রমুখ। মাসুম বিল্লাহ কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতা আবৃত্তি করেন। বাংলা ও ইংরেজিতে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন হাবিবা সুলতানা পলাশ ও জিসান। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন পেশার ৬শ’ পাঠক এই কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন। গাইবান্ধা শহর ও বাদিয়াখালী থেকে বইপড়া কর্মসূচিটি পরিচালিত হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ আবদুল মতিন বলেন, বহুমুখী প্রতিভা ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার অধিকারী কবি কাজী নজরুল ইসলাম সকল সময়ের জন্য সমসাময়িক। আমাদের জীবনে কাজী নজরুল ইসলামের চর্চা অপরিহার্য। নজরুল চর্চা কেন্দ্রের ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি এই সংগঠনকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। বইপড়া কর্মসূচিতে বিজয়ী শ্রেষ্ঠ পাঠককে পুরস্কৃত করার ঘোষণা দেন জেলা প্রশাসক।
অনুষ্ঠানে বীরমুক্তিযোদ্ধা কর্নেল(অব.) মঈনুল হকের পক্ষ থেকে ১৫ খণ্ডে মুক্তিযুদ্ধের দলিল নজরুল চর্চা কেন্দ্রকে প্রদান করা হয়।

আরও পড়ুন...