বেরোবিতে চলছে তৃতীয় বারের মত শাস্ত্রীয় সংগীত

পিবিএ,বেরোবি: বাংলাদেশে শাস্ত্রীয় সংগীতের ধারা অব্যাহত এবং আরও বেগবান করতে ঢাকার বাইরে টানা তৃতীয় বারের মত শাস্ত্রীয় সংগীতের সবচেয়ে বড় আসর অনুষ্ঠিত হচ্ছে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি) প্রাঙ্গনে। সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্রের আয়োজনে বৃহস্পতিবার(৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাতভর আসরটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১নং কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে দেশি-বিদেশি মোট ৩০ জন শাস্ত্রীয় সংগীত শিল্পী অংশগ্রহণ করছেন।অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও।

এবারের আসরে উচ্চাঙ্গসংগীত, যন্ত্রসংগীত এবং উচ্চাঙ্গ নৃত্য (ভরতনট্যম, কথক, মণিপুরী) পরিবেশিত হবে।এতে ঠাকুরগাঁও থেকে শ্বাশ্বতী মহন্ত (কন্ঠ), ঢাকা থেকে বাবরুল আলম চৌধুরী (নৃত্য), ভারত থেকে বিপ্লব মূখার্জী (কন্ঠ), ঢাকা থেকে প্রিয়াঙ্কা সরকার (নৃত্য), ভারত থেকে মধুমিতা পাল (নৃত্য), রাজশাহী থেকে আলমগীর পারভেজ(কন্ঠ), ঢাকা থেকে মাহমুদুল হাসান (বেহালা), ভারত থেকে কোয়েল ভট্টাচার্যৃ (বেহালা), ভারত থেকে অর্ণব ভট্টাচার্য (সরদ), ভারত থেকে পঞ্চজনা দে (বাঁশি), ভারত থেকে নীলিমেশ চক্রবর্তী (তবলা), ভারত থেকে ইমন সরকার(তবলা), ভারত থেকে অরজিৎ সরকার (তবলা) পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করবেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে অর্কেষ্টা পরিবেশিত হবে শুদ্ধ সংগীত পরিষদ কর্তৃক।

সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্রের সদস্য সচিব এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শামসুল হক বলেন, এরকম অনুষ্ঠান শোনার এবং দেখার সুযোগ সচরাচর হয় না। আমরা শিক্ষার্থীদের সুস্থ ধারার সংস্কৃতির সাথে পরিচিত করাতে চাই। তাই এ ধরনের আয়োজন শিক্ষার্থীদের সুস্থ সংস্কৃতি চর্চায় অনুপ্রেরণা যোগাবে। এবারের আসরের আহ্বায়ক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আতিউর রহমান বলেন, উত্তরবঙ্গের বাতিঘর খ্যাত আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে কিভাবে সুস্থ ধারার সংস্কৃতি বিকাশ সাধন করা যায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করা যায় সেই লক্ষ্যেই আমাদের এই আয়োজন। আশা করছি বিগত বছরগুলোর ন্যায় এবারো জাঁকজমকভাবে অনুষ্ঠানটি উপভোগ্য হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেন, সন্ধ্যা থেকে রাত অবধি বেরোবি অঙ্গনে সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্রের আয়োজনে ৩য় শাস্ত্রীয় সংগীত উৎসব দেশের পাশাপাশি আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারত থেকেও বিশিষ্ট সংগীতঙ্গরাও এই অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহন করবেন। যারা শাস্ত্রীয় সংগীতের অনুরাগী তারা অনাবিল আনন্দ লাভ করবেন এ অনুষ্ঠানে মধ্য দিয়ে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে ঢাকার বাহিরে প্রথম বারের মতো শাস্ত্রীয় সংগীতের আয়োজন করে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় সংস্কৃতি বিকাশ কেন্দ্র। এরই ধারাবাহিকতায় প্রতিবারের ন্যায় তৃতীয় বারের মতো এ শাস্ত্রীয় সংগীত উৎসবের আয়োজন করে সংগঠনটি। এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সবার মাঝে ব্যাপক আগ্রহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

পিবিএ/নাজমুল হুদা নিমু/বিএইচ

আরও পড়ুন...