ভয় নয়, জয় জরুরি

মেঘলা ইসলাম : কাজকে ভয় নয় বরং সহজ ও ফলপ্রসূ করতে হবে । দীর্ঘ ৩ বছর যাবত আমি কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ/রিপ্রেজেন্টেটিভ এবং ডিজিটাল মার্কেটিং টিমের একজন সদস্য হিসেবে একটি সুনামধন্য প্রাইভেট কোম্পানিতে কাজ করছি । ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলছি -কর্মস্থল হল প্রতিটা কর্মজীবী মানুষ এর দ্বিতীয় পরিবার।আর সেই পরিবার/কর্মস্থলে যদি কেউ ভয়ে ভয়ে আর মন থেকে নিজের সম্পূর্ণটা না দিয়ে কাজ করে বা করতে না পারে তবে সেই পরিবার/কর্মস্থল সর্বদা পিছিয়ে থাকবে। চাকুরীতে প্রবেশের পরপরই নিজ দায়িত্ব, কর্তব্য, অধিকার ও সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে সকলের মধ্যেই কিছুটা আতংক কাজ করে ।

প্রথমাবস্থায় এটি স্বাভাবিক তবে পরবর্তীতে যদি এই ধরনের কোন অহেতুক ভয় ইমপ্লয়ির মনে থাকে তবে তা প্রতিষ্ঠান তথা এমপ্লয়ির জন্য সর্বোপরি খারাপ । এমন হলে ইমপ্লয়ি শুধু আপনাকে দেখাতে কাজ করবে, চাকুরি যেন না হারায় এর জন্য কাজ করবে,মন থেকে কাজ করবে না বা করতে পারবেনা। আর এমপ্লয়ি যদি কোম্পানি কে ভালবেসে আর মন থেকে কাজ না করে তবে প্রতিষ্ঠানের ধারাবাহিক উন্নতি সম্ভব না।

একজন এমপ্লয়ি যে কোন প্রতিষ্ঠান এর জন্য মূল্যবান।হতে পারে সে বর্তমানে কর্মরত অথবা হতে পারে সে আপনার প্রতিষ্ঠানে অতিতে কাজ করেছে এমন। আপনার কোম্পানির শুনাম বয়ে আনতে দুজনই গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। তাই তারা যেন ভালবেসে কাজ করে এবং অন্য কোথাও কাজ করলেও আপনার প্রতিষ্ঠানের প্রতি তাদের ভাললাগা কাজ করে, এই দিকে লক্ষ রাখা উচিত। যদি কেউ ভয়ে অথবা বাজে কোন আচরণে নিজেকে উপথাপন না করে তবে তা একটি প্রতিষ্ঠানের জন্য মারাত্মক ক্ষতি। নিজের গুণাবলীর উৎকর্ষ সাধন এবং বিকাশের জন্য যথেষ্ট স্বাধীনতা দিলে একজন ছোট পদে থাকা ইমপ্লয়িও সুফল বয়ে আনতে পারে। মনে রাখা দরকার যে, ভয় আর সম্মান এক নয়। এমনটা হতেই পারে যে আপনার অধীনে কর্মরত ব্যক্তি আপনাকে ভয় পায় কেবজ, সম্মান করেনা।সে ক্ষেত্রে সে কেবল আপনি যে কাজ তুকু দিবেন তাই করতে চেষ্টা করবে ।ফলে তার দায়িত্ববোধ কাজ করবেনা ।

আর বিপরীতে যদি আপনি একজন কর্মকর্তা বা কর্মচারীর প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করেন, তাকে কাজের স্বাধীনতা দেন তবে সেও আপনাকে ভালো কাজ উপহার দিতে বাধ্য । একজন জুনিয়র কর্মকর্তার উচিত চাকুরীর নিয়ম-শৃংখলা সঠিকভাবে মেনে তাঁর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার আদেশ মত কাজ করা। তেমনি জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার দায়িত্ব জুনিয়র কর্মকর্তাকে যথাযথভাবে কাজটি বুঝিয়ে দেয়া।

এতে করে কাজ হবে সুন্দর ফলপ্রসূ আর সম্পর্ক গুলো হবে স্মমানজনক । সহকর্মীদের মধ্যে সম্পর্ক সুদৃঢ় রাখার জন্য জ্যেষ্ঠ, কনিষ্ঠ ও সমমর্যাদার কর্মকর্তাদের সাথে সৌজন্য বজায় রেখে আচরণ করা উত্তম।ন্যায়সংগত ও আইনানুগ প্রথায় এগুলে যে কোন প্রতিষ্ঠান সর্বোচ্চ মুনাফা আর মর্যাদা অর্জন করতে সক্ষম । এককথায় বলা যায় ভয় নয়, সর্বোপরি জয় জরুরি ।

লেখক: কবি ও কলামিস্ট

পিবিএ/এমআই

আরও পড়ুন...