রাজনীতি থেকে বিদায় শেষে যা করতে চান দীপু মনি

পিবিএ,ঢাকা: রাজনীতি থেকে বিদায় নিলে কোন শিল্পীর কাছে গিয়ে চিত্রকর্মের ওপর দীক্ষা নিতে চান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। কূটনীতিক পেশায় নিয়োজিত চিত্রকর আবিদা হোসেন ও জামাল হোসেন দম্পতির যৌথভাবে আকাঁ চিত্রকর্ম দেখে এমন মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে ‘বঙ্গবন্ধুর শতবর্ষে শতচিত্র প্রদর্শনী’র অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে কূটনৈতিক চিত্রকর আবিদা হোসেন ও জামাল হোসেন দম্পতির যৌথভাবে আঁকা চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

মন্ত্রী বলেন, একজন কূটনীতিক হয়ে জামাল দম্পতি বাংলাদেশের প্রকৃতি, রূপ ও বৈশিষ্ট তাদের রং তুলি দিয়ে নানা চিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের আদর্শ ধারণ করে আমাদের শিশুদের গড়ে তোলা আমাদের প্রধান কাজ। এ আদর্শ নতুন প্রজন্মের মধ্যে গড়ে তুলতে পারলে আমাদের সকলের চেষ্টা সফল হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করে নতুন প্রজন্ম সোনার দেশে গড়বে।’

ডা. দীপু মনি বলেন, আগামী ১৭ মার্চ থেকে বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী পালন করা শুরু হবে। একজন কূটনৈতিক হয়ে জামাল দম্পতি বাংলাদেশের প্রকৃতি, রূপ ও বৈশিষ্ট তাদের রঙতুলি দিয়ে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বপ্ন দেখিয়েছেন, সেই স্বপ্ন নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। বর্তমানে বিশ্ববাসীর কাছে বাংলাদেশ একটি রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। আমাদের অনেক ইতিহাস, ঐতিহ্য রয়েছে। আমরা দখলদার, দাপটে ক্ষমতাসীন নই। মুজিবের আদর্শ ধারণ করে আমাদের শিশুদের তৈরি করতে হবে। শিশুদের মধ্যে মুজিবের আদর্শ ছড়িয়ে দেয়া হবে আমাদের মূল উদ্দেশ্য। তাদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

তার সঙ্গে দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে ধারণ করারও আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সাবেক সিনিয়র সচিব ও কবি কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, বিটিআরসি সচিব আবু হেনা মোস্তফা কামাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক নিসার হোসেন ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

চিত্রকর জামাল হোসেন বলেন, একজন কূটনীতিক হলেও শখের বসে আকাঁআকিঁ করে থাকি। বাংলাদেশ, মাটি ও মানুষকে ছবির ভাষায় তুলে ধরার চেষ্ট করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুকে অন্তরে ধারণ করে তার জন্মশতবার্ষিকীতে রং তুলি দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জীবনী তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।

পিবিএ/এমএসএম

আরও পড়ুন...