রাবিতে ফের নিষ্ক্রিয় করা হলো মর্টারশেল ও রকেট লাঞ্চার

আকরাম হোসাইন,রাবি (রাজশাহী): রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) পাওয়া মুক্তিযুদ্ধের সময় ব্যবহৃত পরিত্যক্ত দুইটি মর্টারশেল, একটি রকেট লাঞ্চার ও একটি এন্টি পার্সোনাল মাইন ফের নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে। শনিবার (১ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের বধ্যভূমি এলাকায় এগুলো বিস্ফোরণের মাধ্যমে নিষ্ক্রিয় করেন সামরিক বাহিনীর সদস্যরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

লুৎফর রহমান জানান, বগুড়া মাঝিরা ক্যান্টনমেন্ট এর ক্যাপ্টেন মিনহাজ আহমেদের নেতৃত্বে একটি বোমা নিষ্ক্রিয় দল এসে ২টি মটার শেল, ১টি রকেট লাঞ্চার ও একটি মাইন নিস্ক্রিয় করেন।

তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়টির শহীদ শামসুজ্জোহা হলের পাশে আরও বিস্ফোরক থাকতে পারে। আমরা চাই এর একটা সু বন্দোবস্ত হোক, এখানে যদি কোনো বিস্ফোরক বা মরণাস্ত্র থাকে তাহলে মানুষের ক্ষতির কারণ না হয়।
আমরা সেনাবাহিনীর সদস্যদের জানিয়েছি। তারা আমাদের কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। বিস্ফোরক থাকলে কিভাবে সেগুলো সরানোর ব্যবস্থা করা যায় সে ব্যবস্থা করতে প্রশাসনের সাথে কথা বলেছি। তারা স্থায়ী ব্যবস্থা করবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন।

এর আগে শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) বিশ্ববিদ্যালয়টির শহীদ শামসুজ্জোহা হলের পাশ থেকে ২টি মটার শেল, ১টি রকেট লাঞ্চার দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানান স্থানীয় বুধপাড়া এলাকার বাসিন্দা জুয়েল। পরে মাইনুল ইসলাম নামের এক পুলিশ সদস্য ১টি এম ফোরটিন অ্যান্টি পার্সোনাল মাইন উদ্ধার করেন।

এ ছাড়া গত ২৭ এপ্রিল একই পুকুরে একটি মর্টারশেল পান স্থানীয় মেহেরচন্ডী এলাকার মাছ চাষী শরীফ। পরে পুলিশকে জানালে ২৮ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বিস্ফোরনের মাধ্যমে সেটি ধ্বংস করা হয়। এনিয়ে ৩ টি মর্টারশেল, ১ টি রকেট লাঞ্চার ও ১ টি মাইন পাওয়া গেছে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায়।

পিবিএ/জেডএইচ

আরও পড়ুন...