রাবি ছাত্রীকে ধর্ষণে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

পিবিএ,রাবি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ছাত্রী ধর্ষণ ও পর্ণোগ্রাফি মামলায় অভিযুক্ত অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান সারদসহ অন্যান্য সকল অভিযুক্তদের বিশ^বিদ্যালয় থেকে বহিস্কারের দাবি জানিয়েছে শাখা ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন থেকে ধর্ষণে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, একজন নারী ধর্ষিত হওয়ার সাথে সাথে ধর্ষিত হয় তার পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্র। ধর্ষণের দায় শুধু নারীর নয়, এ দায় ধর্ষকের, সমাজের, রাষ্টের। ধর্ষকের কোন ধর্ম, বর্ণ, জাত নেই। ধর্ষকের পরিচয় শুধুই ধর্ষক। তার শাস্তি নিশ্চিত করা রাষ্টের দায়িত্ব।

বক্তারা আরো বলেন, ধর্যণের বিরুদ্ধে শুধু আইন নয়, আইনের দ্রুত কার্যকর ও সামাজিক প্রতিরোধ গরে তুলতে হবে। ধর্ষকের শাস্তি নিশ্চিত করার মাধ্যমে সমাজ থেকে সকল প্রকার অপরাধ দূর করা সকলের নৈতিক দায়িত্ব।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন- সাবেক ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক জান্নাতুল ফেরদাউস, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, সহ-সভাপতি হাবিবুল্লাহ নিক্সন, মিল্টন, সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত রাজু, জান্নাতারা জান্নাত, উপধর্ম বিষয়ক সম্পাদক দুর্জয় প্রমুখ। এ সময় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইমতিয়াজ আহমেদসহ বিভিন্ন ইউনিটের শতাধিক নেতাকর্মী মানববন্ধনে অংশ নেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মাহফুজুর সারদ (২২) ও কয়েকজন বন্ধু মিলে তার বান্ধবীকে কাজলা সাঁকপাড়া এলাকার মেসে নিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পরে ওই ছাত্রীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা না দিলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এরপর গত ২৭ জানুয়ারি দুপুরে ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী মামলা দায়ের করে। পরে রাজশাহী মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক সেলিম রেজা আসামিকে দুইদিনের রিমান্ডে নিয়ে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

পিবিএ/বিএইচ

আরও পড়ুন...