শিশু আয়াত হত্যা: এবার পায়ের পর মিললো মাথার খণ্ডিত অংশ

অপহরণের পর হত্যার শিকার আয়াতের পায়ের পর মাথার খণ্ডিতাংশ পাওয়া গেছে বলে দাবি করেছেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টেগশন (পিবিআই)।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে নগরেরে ইপিজেড থানার আকমল আলী রোডের শেষ প্রান্তে নালা সংলগ্ন এলাকা থেকে মাথার অংশ উদ্ধার করা হয়। এর আগে গতকাল আয়াতের পা খণ্ড অংশ উদ্ধার করার কথা জানায় পিবিআিই।

পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্টো অঞ্চলের ইন্সপেক্টর ইলিয়াস খান মাথার খণ্ডিতাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সকালে অভিযানের এক পর্যায়ে মাথার অংশ পাওয়া গেছে।

এর আগে গত ২৫ নভেম্বর আবীরকে নিয়ে পুলিশ নগরের আকমল আলী সড়কের স্লুইস গেট সংলগ্ন নালায় এবং পরবর্তীতে আউটার রিং রোড সংলগ্ন বে-টার্মিনাল এলাকার সমুদ্র পাড়ে যায়। তবে ‘সাগরের পানিতে ভেসে যাওয়ায় শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

তবে আকমল আলী সড়কে তার মায়ের বাসার সামনে একটি ঝোপ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত বটি উদ্ধার করে। এছাড়া আয়াতের বাসার পাশে কবরস্থানে স্যান্ডেলও উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আয়াতের বাবা বাদী হয়ে নগরের ইপিজেড থানায় মামলা দায়ের করেন। গতকাল রোববার শিশু আলীনা ইসলাম আয়াতকে অপহরণের পর হত্যায় অভিযুক্ত রিমান্ডে থাকা আবীর আলীকে সঙ্গে নিয়ে ফের মরদেহের খণ্ডিত অংশগুলোর সন্ধানে ফের তল্লাশি চালিয়েছিল পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) চট্টগ্রাম মেট্রো।

এদিকে শিশু আয়াত হত্যায় গতকাল মঙ্গলবার অভিযুক্ত আবীর আলীর পিতা ও মার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত এর আগে সোমবার আবীরের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছিল পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। আদালতে শুনানি শেষে সাত দিনের রিমান্ডের মঞ্জুর করে।

আয়াত হত্যায় অভিযুক্ত আবীর আলী (১৯) নগরের ইপিজেড থানার দক্ষিণ হালিশহর ওয়ার্ডের নয়ারহাট এলাকার ভাড়াটিয়া বাসিন্দা আজহারুল ইসলামের ছেলে। শিশু আয়াতকে খুনের মামলায় তার সম্পৃক্ততার তথ্য মেলায় গত ২৪ নভেম্বর রাতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

আরও পড়ুন...