শেয়ার বাজার নিয়ে আশার বাণী অর্থমন্ত্রীর

এনইসি সম্মেলন কক্ষে স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে অর্থমন্ত্রীর মতবিনিময় সভা

পিবিএ ঢাকা: অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আমরা ভালোভালো কোম্পানি, বিশেষ করে সরকারি কোম্পানিগুলোকে শেয়ারবাজারে আনার জন্য অবশ্যই চেষ্টা করবো। এবং কোম্পানিগুলো যাতে সঠিক দর পায়, সেই কাজটা আমার করবো। যাতে আইপিওতে দর অতি মূল্যায়িত না হয়। যাতে পরবর্তীতে কোন শেয়ারের দর অতি মাত্রায় কমে বাজার পরিস্থিত খারাপ না হয়। সে জন্য আমরা বিশেষ কমিটি করে দিয়েছি। এই কমিটি সারা বছর পর্যবেক্ষণ করবেন। কমিটি তালিকাভূক্ত কোম্পানিগুলো কার্যক্রমে আছে, নাকি বন্ধ হয়ে গেছে, কোম্পানিগুলোর অবস্থা কেমন ইত্যাদি দেখবে।

শেয়ার বাজার

সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) আগারগাঁওয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের এনইসি সম্মেলন কক্ষে স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে অর্থমন্ত্রীর মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা বাজারে আইপিও আনবো। আইপিওগুলো যাতে যথাযথ ভেলুতে আসতে পারে, সেদিকেও আমরা নজর দিবো। বাজারের সাথে দেশে সকল মানুষ যারা বাজারকে নিয়ে চিন্তা করে তাদেরকে আমরা বাজারে আনবো।

তিনি বলেন, আমরা সবার সহযোগিতা এবং সহায়তায় আমাদের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে চাই। অর্থনীতির মৌলিক এলাকা হচ্ছে শেয়ারবাজার। সুতরাং এই মৌলিকএলাকাকে আমরা কখনো অবহেলা করতে পারি না। আমাদের সরকার অনেক চেষ্টা করেছে। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে অনেকবার বক্তব্য রেখেছেন। তিনি জানেন এই বাজারের সাথে আমাদের মধ্যম ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা জড়িত আছেন। সুতারাং সবার জন্য এই শেয়ারবাজার। এই কারনে শেয়ারবাজার সবসময় আমাদের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষন করে। শেয়ারবাজারকে নিয়ে আমরা সব সময় সতর্ক অবস্থানে থাকি। যাতে করে শেয়ারবাজারে যারা ব্যবসা করতে আসে তারা যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

মুস্তফা কামাল বলেন, সভায় আমরা নিজেদের মধ্যে বাজারের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেছি। এখন আরও কিছু কাজ বাকি আছে। এগুলো পর্যালোচনা করতে হবে। এরপরে শেয়ারবাজারের জন্য করণীয় কাজগুলো দ্রুত করা হবে। আলোচনা সভায় সবাই একমত হয়েছে যে, শেয়ারবাজারের উন্নয়ন ছাড়া আমাদের সামনে আরো কোনো চিন্তা নাই। শেয়ারবাজারের উন্নয়নের জন্য সরকার যেটুকু সহায়তা দিতে পারে, তা দেবে। সরকারের বিভিন্ন ডিভিশনের সবাই ঐক্যমতে পৌছেছি যে, আমরা আমাদের সহায়তা অব্যাহত রাখবো।

তিনি আরো বলেন, ভালো ভালো সরকারি কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজারে আসবে। পুঁজিবাজারে শেয়ারের মূল্য যাতে যথাযথ হয় সেই কাজও করবো। এজন্য বিশেষ কমিটি করে দিয়েছি, তারা ঘুরে ঘুরে এসব দেখবে। যারা লাফিয়ে লাফিয়ে পুঁজিবাজারে শেয়ারের দাম বাড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করবে তারা ছাড় পাবে না।

বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান, বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) চেয়ারম্যান, ফিন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের চেয়ারম্যান, ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) চেয়ারম্যান এবং সাধারণ বিমা করপোরেশনের চেয়ারম্যান প্রমুখ।

পিবিএ/জেডআই

আরও পড়ুন...

ঘরে বসেই নিজের বিকাশ একাউন্ট খুলুন