সহকর্মীদের কাঁদিয়ে

চিরবিদায় নিলেন র‍্যাবের এয়ার উইংয়ের পরিচালক ইসমাইল

সহকর্মীদের কাঁদিয়ে নিজের কর্মস্থল থেকে চিরবিদায় নিলের র‍্যাব ফোর্সেস এয়ার উইংয়ের পরিচালক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন। বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় র‍্যাব সদর দফতরে মরহুম এই কর্মকর্তার দ্বিতীয় জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে সকালে লে. কর্নেল ইসমাইলের মরদেহ র‍্যাব সদর দফতরে পৌঁছায়। পরবর্তীতে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আখতার হোসেন, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ, র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুনের উপস্থিতিতে তাকে গার্ড অফ অনার দেওয়া হয়।

এরপর মরদেহে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, আইজিপি, র‍্যাব ডিজি এবং মরহুমের পরিবারের সদস্যরা। চৌকশ এই কর্মকর্তাকে শেষ বিদায় জানানোর সময় সহকর্মীরা অশ্রুসিক্ত হয়ে যান।

অতঃপর বাদ জোহর ঢাকা সেনানিবাস কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে তৃতীয় জানাজার নামাজ শেষে তার মরদেহ বনানীর সামরিক কবরস্থানে যথাযোগ্য সামরিক মর্যাদায় সমাহিত করা হয়।

বুধবার (১০ আগস্ট) রাত সাড়ে সাতটার দিকে সিঙ্গাপুর থেকে ইসমাইলের মরদেহবাহী বিমানটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়। তখন র‍্যাব প্রধান নিহতের মরদেহ বুঝে নেন।

একইদিন রাতে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয় তার নিজ এলাকা রাজধানীর কালশীর বাইতুর রহমান জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে। এই শহীদ সেনা কর্মকর্তাকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানাতে ভিড় করেন স্বজন ও স্থানীয়রা।

মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৪৫ বছর বয়সে মারা যান র‍্যাব এয়ার উইংয়ের পরিচালক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন। তিনি হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় আহত হয়ে সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

র‍্যাব ফোর্সেসের এয়ার উইং পরিচালক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন গত ২৭ জুলাই প্রশিক্ষনকালীন হেলিকপ্টারে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ঢাকার নবাবগঞ্জে দুর্ঘটনায় পতিত হন। দুর্ঘটনা পরবর্তীতে তাকে উদ্ধার করে দ্রুততম সময়ে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করা হয়।

দুর্ঘটনায় তিনি মেরুদন্ডে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত ৫ আগস্ট তাকে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

গত ৬ আগস্ট তার মেরুদণ্ডের সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। কিন্তু অন্যান্য শারীরিক জটিলতার কারণে তার অবস্থার অবনতি হয়। পরবর্তীতে ৯ আগস্ট আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

আরও পড়ুন...