সাজাপ্রাপ্ত চরমপন্থী নেতা সহযোগীসহ গ্রেফতার

খুন ও ডাকাতির মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এবং পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি লাল পতাকা ওরফে সর্বহারা দলের চরমপন্থী নেতা শুক্কুর আলী (৫০) ও তার প্রধান সহকারী দুর্র্ধষ ডাকাত দিদার মিয়াকে (৪০) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৩।

বুধবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল মঙ্গলবার রাতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানা এলাকা থেকে খুন ও ডাকাতি মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত হবিগঞ্জ, নেত্রকোনা এবং কিশোরগঞ্জের ত্রাস পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি লাল পতাকা ওরফে সর্বহারা দলের চরমপন্থী দলের নেতা পেশাদার খুনি শুক্কুর আলীকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার সহযোগী দিদার মিয়াকেও গ্রেফতার করা হয়।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে সর্বহারা পার্টির চরমপন্থী নেতা শুক্কুর আলী নেত্রকোনার খালিয়াজুড়িঁ থানা এলাকার একটি বাড়ির দেওয়াল ভেঙে তার দলসহ বাড়িতে প্রবেশ করে স্বর্ণালংকার, নগদ টাকাসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে। এ ডাকাতির ঘটনায় ভুক্তভোগী মনোরঞ্জন সরকারের ছেলে বাঁধা দিলে তাকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে শুক্কুর আলী ও তার সহযোগীরা।

গ্রেফতার দিদার ওই হত্যাকাণ্ডে তার চাচা শুক্কুর আলীর প্রধান সহকারী হিসেবে ভূমিকা পালন করে। খুনসহ ডাকাতির ঘটনায় খালিয়াজুড়ি থানায় মামলা হয়।

এ মামলার বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে আদালত ২০১৯ সালে আসামিদের বিরুদ্ধে যাবজ্জীবন সাজা প্রদান করলে গ্রেফতার এড়াতে তারা এলাকা ত্যাগ করে নারায়ণগঞ্জে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করে। প্রায় তিন বছর পালিয়ে থাকার পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয় বলে জানান র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক।

আরও পড়ুন...