সুইডেনে পবিত্র কুরআনুল পোড়ানোর প্রতিবাদে মানববন্ধন

২৪ জানুয়ারি ২০২৩ ইং নারায়ণগঞ্জ এর আব্বাসী মঞ্জিল জৌনপুর দরবার শরীফের প্রাঙ্গণে সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় পবিত্র কুরআনুল কারীমে অগ্নি সংযোগের নিন্দা ও প্রতিবাদে তাহরীকে খাতমে নুবুওয়্যাত বাংলাদেশের উদ্যোগে এক বিশাল মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

তাহরীকে খাতমে নুবুওওয়্যাত বাংলাদেশের আমীর আল্লামা মুফতি ড. সাইয়্যেদ মুহাম্মাদ এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী ওয়া সিদ্দিকী পীরসাহেব জৌনপুরী হুজুর উক্ত মানববন্ধনে বলেন-

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যে নিন্দা প্রকাশ করা হয়েছে তাতে আমরা সন্তুষ্ট নই। সরকারের উচিত, সুইডেনের রাষ্ট্রদূত কে তলব করে রাষ্ট্রীয়ভাবে নিন্দা প্রস্তাব দেয়া এবং সুইডেন সরকার যতদিন পর্যন্ত দোষীদের কে উপযুক্ত শাস্তি না দিবে,  ততদিন পর্যন্ত বাংলাদেশে সুইডিশ দূতাবাস বন্ধ করে দিতে হবে। যদি বাংলাদেশ সরকার এই পদক্ষেপ নিতে অপারগ হয় বাংলাদেশের মুসলমান রাজপথে নেমে আসতে বাধ্য হবে।

আব্বাসী হুজুর ইসলামপন্থী রাজনীতিবিদগনকে প্রশ্ন করে বলেন- কুরআনুল কারীমের বিরুদ্ধে এই ন্যাক্কারজনক আচরনের পরেও আপনারা চুপ কেন? মনে রাখতে হবে বাংলাদেশের মুসলমানদের বাদ দিয়ে ক্ষমতায় যাওয়াও যায় না, থাকাও যায় না।

তিনি আরও বলেন- রাসুলুল্লাহ (সা) এর শ্রেষ্ঠ মুজিঝা কুরআনুল কারীমে আগুন ধরিয়ে সুইডেনের উগ্রপন্থিরা মুসলমানদের হৃদয়ে রক্তের ক্ষরণ সৃষ্টি করেছে। এই ঘৃন্য কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছি।

সুইডিশ উগ্রপন্থী জারজ সন্তানেরা মূলত বাক স্বাধীনতার নামে ইসলামের বিরোধিতা করছে।

পীর সাহেব হুজুর আরও বলেন-৫৭ টি মুসলিম রাষ্ট্রের ২০০ কোটি মুসলমান নিয়ে মুসলিম বিশ্ব। আর মুসলিম বিশ্বকে  ছাড়া পরাশক্তি চিন্তাও করা যায় না। কুরআনুল কারীম অগ্নি সংযোগ করার মাধ্যমে সুইডেন তার মানচিত্রে আগুন ধরিয়েছে। এমন একদিন আসবে ইসলামপন্থীরা সুইডেন বিজয় করে ইসলামী শরিয়াহ আইন বাস্তবায়ন করবে এবং এসকল কুখ্যাত উগ্রপন্থীদের কে মৃত্যুদন্ডের শাস্তি কার্যকর করবে ইনশাআল্লাহ।

জাতী সংঘের নিশ্চুপ ভূমিকা নিয়ে ড. আব্বাসী বলেন- এটি একটি খ্রিস্টান ক্লাব। এর মাধ্যমে মানবাধিকার বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না। তিনি প্রশ্ন করে বলেন- কেন সুইডেনের প্রতিনিধি কে তলব করে জাতি সংঘ প্রতিবাদ করে নাই তা মুসলিম বিশ্ব জানতে চায়।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তাহরিকে খাতমে নুবুওয়্যাত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় মহাসচিব মাওলানা আরিফুর রহমান, মাওলানা বারাতুল ইসলাম, মাওলানা গোলাম মোস্তফা, মাওলানা শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

পরিশেষে সবাই ধন্যবাদ জানিয়ে দেশ বাসীর কাছে জন্য কামনা করে মানববন্ধন সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন...