সুনামগঞ্জে গৃহবধুকে হত্যারপর মাটিচাঁপা দিয়ে লাশ গুমের চেষ্টা!

লাশ উদ্ধার
প্রতীকী ছবি

পিবিএ, সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে পরিপকল্পিতভাবে হত্যার পর সবজি (শিম) বাগানে মাটি চাঁপা দিয়ে মদিনা আক্তার (৩৫) নামে এক গৃহবধুল লাশ গুমের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।
শনিবার সন্ধা রাতে উপজেলার লতারগাঁও পশ্চিমপাড়ার জনৈক সবজি চাষীর সবজি বাগান হতে ওই গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মদিনা উপজেলার সলুকাবাদ ইউনিয়নের গড়েরগাঁও গ্রামের পাথর শ্রমিক আবদুস ছক্তারের স্ত্রী। রোববার সকালে ওই ঘটনায় নিহতের স্বামী বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্র জানায়, পাথর শ্রমিক আবদুস ছত্তার সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ’র ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারিতে কাজে থাকা অবস্থায় নিজ উপজেলা বিশ্বম্ভরপুরের গড়েরগাঁও গ্রামের নিজ বাড়ি হতে স্ত্রী মদিনা বেগম গত ৭ ফেব্রুয়ারি নিখোঁজ হন। নিখোঁজের খবর পেয়ে পরদিন বাড়ি ফিরে নিজে ও স্বজনদের নিয়ে স্ত্রীকে খুঁজলেও কোন সন্ধান মেলেনি।

এদিকে শনিবার বিকেলে উপজেলার গড়েরগাঁও গ্রাম পার্শ্ববর্তী লতারগাঁও পশ্চিমপাড়ার জনৈক সবজি চাষীর সবজি বা

গানে মাটির নিচে দেবে থাকা একটি ওড়নার অংশ ও মাটিচাঁপা দেয়া অবস্থায় এক নারীর মরদেহ দেখে থানা পুলিশে খবর দেয়া হয়।  পুলিশ ওইদিন সন্ধায় সবজি বাগান হতে লাশ উদ্ধার করেন।  এরপর পরিবারের লোকজন মরদেহটি নিখোঁজ মদিনা বেগমের বলে শনাক্ত করেন।  পরবর্তীতে রাতে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

 নিহতের স্বামী শ্রমিক আবদুস ছক্তার বলেন, আমার ধারণা পরিকল্পিতভাবে আমার স্ত্রীকে অজ্ঞাতনামা ঘাতকরা হত্যার পর মাটি চাঁপা দিয়ে লাশ গুমের চেষ্টা করেছে।

 বিশ্বম্ভরপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান বলেন, পুলিশ প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছে গৃহবধু মদিনা হয়তবা পরিকল্পিত হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছেন, তাই এ হত্যাকান্ডের পেছনে জড়িতদের শনাক্ত করণে পুলিশ ব্যাপক তদন্তে নেমেছেন।

পিবিএ/ হাবিব সরোয়ার আজাদ/জেডআই

আরও পড়ুন...