সেনবাগে নতুন করে আরও ১০জন করোনায় আক্রান্ত

পিবিএ,সেনবাগ: নোয়াখালীর সেনবাগে এবার এক দিনে ১০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছে রাজনৈতিক নেতা, স্কুল শিক্ষিকা ও ঠিকাদার ও ব্যবসায়ী।

বুধবার রাতে নোয়াখালীর আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজের করোনা পরীক্ষাঘার থেকে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পর্যায় ক্রমে সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচপিও) ডাক্তার মতিউর রহমান ও সেনবাগ থানার ওসি আবদুল বাতেন মৃধা করোনায় সংক্রমিত ব্যাক্তিদের বাড়ি গুলো লকডাউন করে এবং রোগীদের হোম কোয়ারান্টইনে থাকার নির্দেশনা দিয়ে তাদেরকে প্রয়োজনীয় ঔষধ সরবরাহ করে।

আক্রান্ত ব্যাক্তিরা হচ্ছে ঃ সেনবাগ পৌরসভার অজুনতলা গ্রামের সেনবাগ কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি, উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও বর্তমান আওয়ামীলী নেতা ভিপি আবু নাছের দুলাল, তার স্ত্রী চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মাহমুদা আক্তার মিতা, ঠিকাদার মোঃ নুরবনী, ৬নং কাবিলপুর ইউনিয়নের উত্তর সাহাপুর গ্রামে করিম বক্স (মকবুল মিস্ত্রী বাড়ির) মোজাম্মেল হোসেন, শামছুন নাহার, শারমিন আক্তার ও সহিদ উল্যা, ছাতারপাইয়া ইউপির পূর্ব ছাতারপাইয়া গ্রামে সাইফুল ইসলাম, আবদুল মন্নান। কাদরা ইউপির তাহেরপুর গ্রামে মমিন আলম।

উল্লেখ ঃ সেনবাগের বর্ণীল ফ্যাশন নামক একটি কাপড়ের দোকান মালিক ও তাদের তিন কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হয়। ভিপি দুলাল ও তার স্ত্রী এবং ঠিকাদার নুরনবী ওই দোকান থেকে ঈদের কেনাকাটা করে করোনায় সংক্রমিত হয়েয়ছে। এছাড়া করিম বক্স (মকবুল মিস্ত্রী বাড়ির) সবজী দোকানদার খোরশেদ আলম প্রকাশ বাবলু এরআগে করোনায় আক্রান্ত হয়। তার সংস্পশে এসে তার ভাই ভাবি সহ পরিবারের অপর ৪জন নতুন করে করেনায় আক্রান্ত হয়।

এই নিয়ে সেনবাগে ২৩ জন করেনায়া সংক্রমিত হলো। এরমধ্যে আলী আক্কাস নামে এক রাজমিস্ত্রী মারা গেছে। করোনায় আক্রান্ত এই ২৩ জনের মধ্যে কাবিলপুর ইউনিয়নেই ১১ জনের বাড়ি।

সেনবাগে করোনয় সংক্রমিতরা হচ্ছে: সেনবাগ পৌরসভার অফিস সহায়ক,জয়নাল আবদিন প্রকাশ ফকির আহম্মদ , পূর্বালী ব্যাং কর্মকর্তা আবু নাছের ও তার ভাই আবু তাহের প্রকাশ ইমরান, গৃহীনী উম্মে কুলসুম, জুটমিল শ্রমিক মোঃ ইয়াছিন প্রকাশ রুবেল, ব্যবসায়ী রিপন, ফারুক, এনাম, খুরশিদ আলম বাবলু, সাইফুল ইসলাম ও আবুল হাশেম ।
পিবিএ/মোঃ জাহাঙ্গীর আলম/এএম

আরও পড়ুন...