স্বরুপে ফিরছে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত

পিবিএ,পটুয়াখালী: পবিত্র ঈদুল আযহার ছুটিতে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে দেশী বিদেশী পর্যটকরা ভিড় করছে। হাজারো পর্যটকদের ভিড়ে কুয়াকাটায় দীর্ঘদিন পর আবার উৎসবমুখর পরিবেশে ফিরতে শুরু করেছে। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে দীর্ঘদিন কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত বন্ধ থাকার পর গত ১জুলাই পটুয়াখালী প্রশাসন উন্মুক্ত করে দিয়েছিলেন পর্যটকদের জন্য।

পর্যটকরা জানান, ঈদের আনন্দ উপভোগ করতেই তারা কুয়াকাটায় এসেছেন। এখানকার সৌন্দর্য তাদের মুগ্ধ করেছে। কুয়াকাটার সাথে সারা দেশের সড়ক পথের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হচ্ছে। বাড়ছে কুয়াকাটা পর্যটক ধারন সক্ষমতা। কুয়াকাটাকে ঘিরে বর্তমান সরকার সুদুর প্রসারী উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। তবে এখানকার অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা খারাপ থাকায় বর্ষায় দর্শনীয় স্পট গুলো দেখা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে পর্যটকরা।

সরেজমিনে কুয়াকাটার ঐতিহ্য লেম্বুর চর, ঝাউবন, গঙ্গামতির লেক, কাউয়ার চর, মিশ্রিপাড়া বৌদ্ধ মন্দির, কুয়াকাটার কুয়া, শ্রীমঙ্গল বৌদ্ধ বিহার, রাখাইনদের তাতঁ পল্লী, আলীপুর-মহিপুর মৎস্যবন্দরসহ দর্শনীয় স্পটগুলোতে পর্যটকদের আনাগোনা দেখা গেছে। তবে বেশিরভাগ পর্যটকদের স্বাস্থবিধি মেনে ভ্রমন করতে দেখা যায়নি।

কুয়াকাটার স্থাণীয় ব্যাসায়ীরা কিছুটা আশার আলো দেখছেন পর্যটক বৃদ্ধি পাওয়ায়। আবাসিক হোটেলগুলো কম বেশি বুকিং হয়েছে। ব্যবসায়ী মোশারফ জানান, দীর্ঘ্য ২-৩ মাস কুয়াকাটায় পর্যটন ভ্রমন বন্ধ থাকায় তারা হতাশ হয়েছিলেন। বর্তমানে পর্যটক বৃদ্ধি পাওয়ায় কিছুটা ব্যবসায় গতি ফিরে পেয়েছে।

কুয়াকাটা টুরিষ্ট পুলিশের অরিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জহিরুল ইসলাম বলেন, ঈদ উপলক্ষে পর্যটক বৃদ্ধি পেয়েছে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে। সকল পর্যটক যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভ্রমন করে সে ব্যাপারে সচেতন করা হচ্ছে।

পিবিএ/সুনান বিন মাহাবুব/এইচএস

আরও পড়ুন...