প্রধানমন্ত্রীর কাছে ৩৫ নারী সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরার আকুতি জানায় (ভিডিওসহ)

পিবিএ ডেস্ক:সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরার আকুতি জানিয়ে ভিডিও প্রকাশ করেছেন আরও ৩৫ নারী শ্রমিক। । এর আগে ভিডিও প্রকাশ করে দেশে ফিরেছেন পঞ্চগড়ের সুমী আক্তার। একইভাবে ভিডিও প্রকাশ করে আরেক নারী হোসনা আক্তার বুধবার রাতে দেশে ফিরছেন।

এ বিষয়ে ব্র্যাকের অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান জানান, পরপর দুজনের উদ্ধারের ঘটনা দেখে ভিডিও প্রকাশ করেছেন আরও ৩৫ জন নারীকর্মী। এই নারীদের আমার স্যালুট। রাষ্ট্র বা নিয়োগকর্তা কেউ তাদের শেখায়নি। তারা নিজেরাই এই কৌশল উদ্ধার করেছে,’ বলেন তিনি।

শরিফুল হাসান বলেন, আমি গত দশ বছর ধরে বলছি আমাদের মেয়েদের শুধু একটা মোবাইল ব্যবহারের অনুমতি দেয়া হোক তারা যাতে বিপদে পড়লে জানাতে পারে। দেখবেন তখন সব সত্য বেরিয়ে আসবে।

‘কিন্তু আফসোস সৌদিরা আমাদের মেয়েদের মোবাইল ব্যবহার করতে দেয় না। সুমি, হোসনারা বহু কষ্ট করে লুকিয়ে যোগাযোগ করে। আমার ভয় হচ্ছে এতগুলো ভিডিও প্রকাশ করার পর সৌদিরা হয়ত আরও কঠোর হবে। আমি বলব আমাদের এখন রাষ্ট্রীয়ভাবে দাবি তোলা উচিত যাতে আমাদের মেয়েরা মোবাইল ব্যবহার করতে পারে,’ যোগ করেন তিনি।

৩৫ নারীকর্মীর মধ্যে ১৩জনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন-শাজেদা বেগম (Bk 0931799), খাদিজা বেগম (EA 0887781), দিলারা বেগম (EB 0433637), মোসা. মিটু (BH 0506372), হাজরা খাতুন (BN 0963692), শান্তি আক্তার(BW 0991618), জান্নাতি ফেরদৌসী (BT 0676584), আলো আক্তার (BE 0771677), শিরিনা আক্তার (BN 0910745), মনোয়ারা বেগম (AF 2652620), জুমুর বেগম (BM 0101573), শকিনা বেগম (BA 0093278), রুমা বেগম (BM 0202071)।

ভাগ্য অন্বেষনে সৌদি আরবে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন নারীকর্মীরা। গৃহকর্মী হিসেবে গিয়ে অনেকেই গৃহকর্তার যৌন ও শারীরিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। নির্যাতনের শিকার অনেকেই দেশে ফিরে আসছেন। অনেকে দিনের পর দিন স্বজনদের কাছে আর্তি করেও ফিরতে পারছেন না।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেও দিনের পর দিন অপেক্ষা করেও সৌদি আরবে থাকা নির্যাতিত স্বজনকে (কারো স্ত্রী, মেয়ে ও মা) ফেরাতে পারছেন না দেশে থাকা স্বজনরা। এমতাবস্থায় ভিডিও বার্তায় সরকারসহ বিভিন্ন মহলের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন নির্যাতিত গৃহকর্মীরা।

সম্প্রতি নির্যাতনের শিকার পঞ্চগড়ের সুমী আক্তার সামাজিক মাধ্যমে ভিডিও বার্তায় বাঁচার আকুতি জানান। যেটি ভাইরাল হয়। এরপর সরকারসহ বিভিন্ন মহলে দৃষ্টি আকর্ষণ হলে সুমীকে গৃহকর্তার কাছ থেকে উদ্ধার করে কিছুদিন আগে দেশে ফেরানো হয়েছে সরকারিভাবে।

সর্বশেষ কয়েকদিন আগে হবিগঞ্জের হোসনা আক্তার সৌদিতে নির্যাতনের শিকার হয়ে স্বজনদের কাছে ভিডিও বার্তা পাঠিয়ে উদ্ধারের আকুতি জানান। আজ বুধবার রাতে সৌদি এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে দেশে ফিরছেন তিনি। ভিডিও ভাইরাল হলে দ্রুত আসে সরকারের নজরে এবং ব্যবস্থা নেয়া হয়। এমন অবস্থা থেকে নির্যাতিত নারীকর্মীরা ভিডিও বার্তাকে গুরুত্ব দিচ্ছেন বলে বিভিন্ন মহল মনে করছে।

পিবিএ/এমএসএম

আরও পড়ুন...